বুধবার,২৬ Jul ২০১৭
হোম / ফিচার / ‘গোল-মেশিন’ সাবিনার গল্প
০৩/০৬/২০১৭

‘গোল-মেশিন’ সাবিনার গল্প

-

বাংলাদেশের নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক এবং আক্রমণভাগের দুর্দান্ত খেলোয়াড় সাবিনা খাতুন। যিনি ‘গোল-মেশিন’ নামেওবেশ পরিচিত। দেশের ছেলেদের ফুটবলের অবস্থা যা হোক না কেন, মেয়েদের ফুটবলে যে ক্রমবর্ধমান উন্নতিদেখা যাচ্ছে, তার পেছনে বড় অবদান সাবিনার। সাতক্ষীরা থেকে আসা এই ফুটবলার তার ফুটবল-জীবন শুরু করেন ২০০৯ সালে অনুষ্ঠিত ‘সিটিসেল জাতীয় মহিলা চ্যাম্পিয়নশিপ’-এ সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে। পরবর্তী সময় তিনি ঢাকা মহানগরী মহিলা ফুটবল লীগ ২০১১-তে খেলেছেন। তিনি কেএফসি জাতীয় মহিলা ফুটবল প্রতিযোগিতায় সেরা খেলোয়াড় হওয়ার গৌরব অর্জন করেন।

দেশের ভেতরে যে সকল টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেছেন, তার প্রতিটিতেই গোলদাতার তালিকায় উপরের দিকে অবস্থান করেন তিনি। ২০১৪ সালের শেষ পর্যন্ত দেশিয় লীগে ১০০-এর অধিক গোল করেছেন সাবিনা। সাবিনার দক্ষতা ও অসাধারণ নৈপুণের জন্য মালদ্বীপের ফুটবল লীগে খেলার ডাক পান সাবিনা। এটি দেশের ফুটবল ইতিহাসে প্রথমবারের মতো কোনো মহিলা ফুটবলারের বিদেশে খেলার দৃষ্টান্ত। মালদ্বীপের পুলিশ ক্লাবের হয়ে সাবিনা খেলেছেন।

টুর্নামেন্টটিতে সাবিনা ৬ ম্যাচে ৩৭ টি গোল করেন, জিতে নেন ৫ ম্যচের সেরা খেলোয়াড়, টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ গোলদাতাসহ আরও অনেক পুরষ্কার। আন্তর্জাতিক ফুটবলে দেশের অধিনায়ক হিসেবে সাবিনার নজরকাড়া মর্যাদার পেছনে রয়েছে তার দুর্দান্ত গোল- রেকর্ড। এসএ গেমস, অলিম্পিক প্রাক-বাছাইপর্ব, এএফসি নারী এশিয়া কাপ ২০১৪ এবং সাফ গেমস, প্রত্যেক টুর্নামেন্টেই তিনি গোল দিয়েছেন। সদ্য ̈সমাপ্ত সাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৬ টুর্নামেন্টে সাবিনা ৭ গোল করে বাংলাদেশকে ফাইনালে পৌঁছাতে সাহায্য করেন, যেখানে স্বাগতিক ভারতের কাছে ৩-১ গোলে পরাজিত হয়ে রানার-আপ হবার গৌরব অর্জন করে বাংলাদেশের মেয়েরা। তিনি ২০১৪ সালের সাফ টুর্নামেন্টেও ৪ গোল করেছিলেন।

দেশ ও বিদেশে সবমিলিয়ে ২০০-এর অধিক গোল করা সাবিনা খাতুন দেশের নারী ফুটবলের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। ব্রাজিলের কিংবদন্তী নারী ফুটবলার মার্তা-কে অনুসরণ করা সাবিনা আজ নিজেই দেশের নারী ফুটবলারদের জন্য আদর্শ। সাবিনা-কে দেশের ফুটবল-প্রেমীরা ‘বাংলাদেশী মহিলা মেসি’ বলে আখ্যায়িত করে থাকেন, এবং সাবিনা তার দক্ষতা এবং নেতৃত্বের মাধ্যমে বাস্তবেই ̄নামটির সার্থকতা দেখিয়ে যাচ্ছেন।

- আলভী