শনিবার,২৩ মার্চ ২০১৯
হোম / অন্দর-বাগান / স্নিগ্ধ সুরভিত ঘরের জন্য
০৩/০৭/২০১৯

স্নিগ্ধ সুরভিত ঘরের জন্য

-

সারাদিনে ক্লান্তি শেষে ঘরে ফিরে সবাই চায় একটু স্নিগ্ধতার আবহ। তাই ঘরে শান্ত পরিবেশ তৈরি করা দরকার। অনেক সময় রুমের দরজা-জানালা বন্ধ থাকলে একটা গুমোট আবহাওয়া তৈরি হয়ে থাকে, একটু গন্ধ গন্ধ লাগে। আমরা অনেকেই বুঝতে পারি না ঠিক কি কারণে কিংবা কোথা থেকে এই দুর্গন্ধের উৎপত্তি। আবর্জনা থেকে শুরু করে কার্পেট, সবকিছুই হতে পারে দুর্গন্ধের কারণ। এই দুর্গন্ধ দূর করতে টিপস দেওয়া হলো।



সুগন্ধির ব্যবহার

সুবাসিত ঘর মন প্রফুল্ল রাখতে এবং মানসিক চাপ কমাতে সহায়ক। তবে প্রথমত খেয়াল রাখতে হবে ঘরে দুর্গন্ধের উৎসগুলো কী। সাধারণত জুতা-মোজা, ভেজা কাপড়, রান্নাঘর ও বাথরুম- এসব থেকেই বাজে গন্ধ ছড়ায়। তাই এই বিষয়গুলো খেয়াল রাখতে হবে সেই সাথে ঘর খোলামেলা ও পরিচ্ছন্ন রাখাও জরুরি।
বাজারে কমলালেবু, স্ট্রবেরি, গোলাপ, বেলিসহ বিভিন্ন সৌরভে এয়ার ফ্রেশনার পাওয়া যায়। আপনার ঘরের পরিবেশ ও রুচির সমন্বয় করে এমন সুগন্ধি ব্যবহার করতে পারেন। ঘরের ধরনভেদে আলাদা সুগন্ধি বাছাই করতে পারেন। যেমন সাইট্রাস এসেনশিয়াল অয়েল বাথরুমের কোনো একটি স্থানে রেখে দিন, সৌরভ ছড়াবে।

সমাধান আছে ঘরেই

প্রতিদিন রান্না-বান্না বা খাওয়া-দাওয়ায় ব্যবহার হয় এমন প্রাকৃতিক উপাদানেও মিলবে সমাধান। এই যেমনÑ লেবুজাতীয় সুগন্ধি খিটখিটে মেজাজ পরিবর্তনেও উপকারী। গ্রিন অ্যাপলের মতো মিষ্টি সুবাস কমাতে পারে মাইগ্রেনের ব্যথা। ঘরে সুবাস ছড়িয়ে দিতে লেবু বা কমলার খোসা, প্রাকৃতিক সুগন্ধিযুক্ত সাবানও ব্যবহার করতে পারেন।
বাজারে নানাধরনের মশলা পাওয়া যায়, যা দুর্গন্ধ দূরীকরণে সহায়ক। এছাড়া কমলা ও লেবুর খোসা, বিভিন্ন গাছের শিকড় এবং নানারকম ফুল এবং পাতা কোনো কাঁচের বাক্সে রোদে শুকিয়ে রেখে দিলে বাসায়ই এসব মশলার মিশ্রণ বানানো যায়। কফির দানা গুঁড়া বা বেক করে রেখেও সুগন্ধি হিসেবে ব্যবহার করা যায়। এর সুগন্ধ ঘরের তীব্র দুর্গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে। আবার ভিনেগার প্রাকৃতিকভাবে বাতাসের দুর্গন্ধ দূর করে এবং ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে। ঘরে সতেজ অনুভূতি আনতে একটি খালি স্প্রের বোতলে সাদা ভিনেগারের সাথে অনেকটা পানি মিশিয়ে ঘরে স্প্রে করুন।

সুগন্ধি মোমবাতি

বাসায় আভিজাত্য আনতে ব্যবহার করতে পারেন সুগন্ধযুক্ত মোমবাতি। সেন্টেড মোমবাতি দেখতে বাহারি হয় এবং খুব তাড়াতাড়ি দুর্গন্ধ দূর করতে পারে। ঘরের কোণে সুন্দর কোনো বড় বাটিতে পানি দিয়ে তাতে ফুল বা ফুলের পাপড়ির সঙ্গে মোমবাতি ভাসিয়ে রাখলে উৎসবের ছোঁয়া লাগবে। রাতের বেলা মোমবাতিগুলো জ্বালিয়ে দিয়ে ঘরের আবহ পরিবর্তন করা যায়।

রঙিন ফুলে ঘর সাজান

বাজারের সুগন্ধিগুলো নানা রাসায়নিক পদার্থ দিয়ে তৈরি হয়। এসব পণ্য ব্যবহারে সুগন্ধ ছড়ায় ঠিকই তবে তাতে অনেকের অ্যালার্জিজাতীয় সমস্যা করে থাকে। তাই এসব ফ্রেশনারের বিকল্প হিসেবে প্রাকৃতিক ফুল বেছে নিন। অতিথির ঘর বা নিজের শোয়ার ঘরে মিষ্টি গন্ধযুক্ত ফুল, যেমনÑ রজনীগন্ধা বা বেলি রাখতে পারেন। এসব ফুল দুর্গন্ধ দূর করতে সক্ষম। ঘরের প্রবেশপথ, শোবারঘর, বসার ঘর, পড়ার টেবিল, বই রাখার তাক, খাওয়ার টেবিল, টিভির পাশে এমনকি বেসিনের পাশে বা গোসলখানায়ও রাখা যায় মানানসই একগুচ্ছ ফুল।

সজীব বৃক্ষের সৌরভ

অর্কিড, পাম, হাস্নাহেনা, স্পাইডার গুল্ম ইত্যাদি গাছ থেকে প্রাকৃতিকভাবে সুগন্ধি বের হয়। আপনার বাড়ির টবে এসব গাছ রাখতে পারেন। এতে করে আপনার ঘরের দুর্গন্ধ দূর হওয়ার পাশাপাশি সৌন্দর্যও বৃদ্ধি পাবে।

বেকিং সোডা

দুর্গন্ধ দূর করতে বেকিং সোডা বেশ কার্যকরী। বিশেষত অ্যাসিডিক উপাদানযুক্ত গন্ধ যেমনÑ ইউরিন বা ঘামের গন্ধ দূর করতে বিশেষ উপযোগী। এটি কাপড়, কার্পেট অথবা ঘর সাজানোর সামগ্রীর স্যাঁতসেঁতে গন্ধ দূর করতে সাহায্য করে। রাতে কিছুটা বেকিং পাউডার ছড়িয়ে দিয়ে সকালে ধুয়ে ফেলুন। জুতা-মোজার দুর্গন্ধ দূর করতেও বেইকিং সোডা ব্যবহার করতে পারেন।
বাজারের সুগন্ধি কি ঘরে তৈরি প্রাকৃতিক সুগন্ধি ব্যবহার করুন; খেয়াল রাখুন বাসা যেন থাকে পরিপাটি ও ছিমছাম। তাতে করে স্নিগ্ধতার পাশাপাশি মানসিক প্রশান্তিও কাজ করবে।

-রিয়াদুন্নবী শেখ