বুধবার,১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
হোম / জীবনযাপন / মাঝরাতে ঘুম ভেঙে গেলে যা করবেন
০২/১৭/২০১৯

মাঝরাতে ঘুম ভেঙে গেলে যা করবেন

- অনন্যা ডেস্ক:

মানবদেহের জন্য ঘুম খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তবে প্রয়োজনের তুলনায় ঘুম বেশি বা কম হলেই তা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। বেশি সময় নিয়ে ঘুমানো, কম ঘুমানো, অনিদ্রা, ঘুম পাতলা হওয়া, এমন নানা জটিলতার কারণে আমরা আক্রান্ত হতে পারি অনেক মারাত্মক রোগ-ব্যধিতে যা সম্পর্কে আমরা বেশিরভাগ মানুষই জানি না। তাই নিয়মমাফিক ঘুমানোর চেষ্টা শরীর সুস্থ রাখার জন্য খুব জরুরী। আমাদের মাঝে এমন অনেক মানুষই আছেন যাদের প্রায় প্রতিদিনই মাঝরাতে হঠাৎ ঘুম ভেঙে যায়।এরপর হাজার চেষ্টা করলেও ঘুম আর আসতে চায় না। এই অসময়ে ঘুম ভেঙে যাওয়ার বিষয়টি একেবারেই অবহেলা করা উচিত নয়। তাই এমন সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আমাদের কিছু অভ্যাস পরিবর্তন করা প্রয়োজন। সে বিষয়ে সবিস্তারে জেনে নেওয়া যাক-

১) ঘুমের সময় এলেই আমাদের শরীর, মেলাটোনিন হরমোনের নিঃসরণ শুরু করে দেয়। সাধারণত রাতেই এই হরমোন সক্রিয় ভাবে কাজ করে। ঘুমের সময় শুয়ে শুয়ে তাই মোবাইল বা ল্যাপটপ নিয়ে ব্যস্ত থাকলে এই হরমোনের নিঃসরণ বাধাপ্রাপ্ত হয়। তাই ঘুমের সময় এই সব কাজ-কর্ম থেকে নিজেকে বিরত রাখুন।

২) মানসিক চাপ আপনার ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাতে পারে। আপনি যদি মানসিক চাপ বা দুশ্চিন্তা নিয়ে ঘুমোতে যান, তাহলে আপনার অবচেতন মনে ওই বিষয়গুলি সক্রিয় অবস্থায় থাকে। ফলে আপনার শরীর অবসন্ন হয়ে পড়লেও মন সজাগ থাকে। ফলে ঠিক মতো ঘুম হয় না। তাই মানসিক চাপ কাটাতে বা কমাতে রোজ মেডিটেশন বা ধ্যান করুন। ধ্যান মানসিক চাপ কমাতে খুবই কার্যকর!

৩) শোবার আগে মদ্যপান বা ধূমপানের অভ্যাস ত্যাগ করুন। একাধিক গবেষণায় দেখা গিয়েছে, অ্যালকোহল এবং নিকোটিন ম্যালাটোনিন নামের হরমোনের ক্ষমতা ও কার্যকারীতা হ্রাস করে। এই হরমোন আমাদের ঘুমের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করে। ফলে মদ্যপান বা ধূমপানের অভ্যাস সাময়িক ভাবে আমাদের স্নায়ুগুলিকে শিথিল করে দিলেও আমাদের মস্তিষ্কের কোষগুলিকে সক্রিয় করে রাখে। ফলে মদ্যপান বা ধূমপানের দীর্ঘমেয়াদী অভ্যাস ঘুমের ব্যাঘাত ঘটাবেই।