সোমবার,২২ Jul ২০১৯
হোম / বিজ্ঞান-প্রযুক্তি / ট্রেন্ডি অ্যাপস-এ স্মুদ জীবন
০১/২৮/২০১৯

ট্রেন্ডি অ্যাপস-এ স্মুদ জীবন

-

প্রযুক্তির কাজ হচ্ছে মানুষের জীবনকে সহজ করা। আর এই কাজটা বেশ ভালোভাবেই হচ্ছে, দিনে দিনে এই সহজের মাত্রাটাও বেড়ে চলছে। প্রতিদিনের জীবনে আপনার কাজের চাপ কমাতে এখন প্রযুক্তি বাজারে রয়েছে নানা অ্যাপস। শত কাজের মাঝে ব্যস্ত শহুরে মানুষগুলো কিছুটা হলেও তাই স্বস্তির নিশ্বাস নিতে পারছেন। আর যারা পারছেন না, তাদের জন্য সহায়ক হতে পারে নিত্য ব্যবহার্য এই অ্যাপগুলো। তাই নতুন বছরের শুরুতে জীবন ও কাজকর্ম ঘিরে নতুন পরিকল্পনায় এই অ্যাপগুলোর কথাও মাথায় রাখা উচিত।

বাজারসদাই সারুন চালডাল-এ
নামে চালডাল হলেও চাল ও ডালের বাইরেও নিত্য ব্যবহারযোগ্য প্রায় সব জিনিসই পাবেন এই অ্যাপে। প্রতিদিনের সদাই করার জন্য এবার বাজারেই যাওয়ার দরকার নেই। চালডাল অ্যাপ থেকে অর্ডার করবেন। হোম ডেলিভারিতে ঘণ্টা এক-দুই এর মধ্যে বাসায় এসে বাজার পৌঁছে দেওয়া হবে আপনাকে। এজন্য বাড়তি খরচও খুব বেশি গুনতে হবে না। ৩০০ টাকার কম অর্ডার করলে সার্ভিস চার্জ আসবে ৩৯ টাকা এবং এর বেশি অর্ডার করলে তা কমে মাত্র ২০ টাকায় কমে আসবে। এছাড়া ডিসকাউন্ট কোড, কুপন ইত্যাদি ব্যবহার করে খরচের পরিমাণ ইচ্ছে করলে আরো কমিয়ে আনতে পারবেন। অ্যাপটি থেকে দৈনিন্দিন বাজার-সদাই বা দোকানের জিনিসপত্র কেনার পাশাপাশি হেলথ কেয়ার, বেবি কেয়ার এমনকি অফিসের জন্য দরকারি প্রোডাক্টও কিনে নিতে পারবেন। প্রতিদিন ব্যস্ততার জন্য সময় করে বাজারে যাওয়ার ফুসরত যাদের হয় না, তাদের জন্য চালডাল হতে পারে একেবারে উপযুক্ত সমাধান।

ঘরেই খাবার পৌঁছে দেয় পাঠাও

প্রতিদিন রান্না মহাযজ্ঞে সময় দিতে পারেন না যারা তাদের জন্য অনলাইনে ফুড ডেলিভারির বিকল্প নেই। ফুড পান্ডা, হাংরি নাকির মতো অ্যাপভিত্তিক ফুড ডেলিভারি সার্ভিসের দুনিয়ার নতুন সদস্য পাঠাও। পাঠাও ফুডে কম সময়ের মধ্যে খাবার পৌঁছে যাবে আপনার বাসায়। পরিবহন খাতে ব্যাপক সাফল্যে পর এবার অ্যাপভিত্তিক ফুড ডেলিভারি সার্ভিসেও নাম করেছে দেশীয় এই প্রতিষ্ঠানটি। পাঠাও-এর রেস্টুরেন্ট তালিকায় যেমন নামী-দামী রেস্টুরেন্টের পাশাপাশি স্টার কাবাব বা সিপি’র মতো ক্ষুদ্র র্ফ্যাঞ্চাইজগুলোও রয়েছে। এতে করে ফুড ডেল্লিভারি সার্ভিসও চলে এসেছে মধ্যবিত্তদের একেবারে নাগালের মধ্যে। এছাড়া ইউজারদের মনোযোগ আকর্ষণের জন্য নিয়মিত অফার বা ডিসকাউন্ট সুবিধা তো রয়েছেই। তাই খাদ্যরসিকদের জীবনে পাঠাও ফুড আলাদাভাবেই জায়গা করে নিচ্ছে।

‘সেবা’র সেবায় সহজ জীবন
‘সেবা এক্স ওয়াই জেড’ অ্যাপটিতে রয়েছে এমন অনেক সার্ভিস পাওয়ার সুবিধা, যা আপনার দৈনিন্দিন জীবনে নানান সমস্যা ও কাজের ভার লাঘব করে দিতে পারে। এই যেমন ধরুন বাসা শিফট করবেন কিন্তু লোক খুঁজে পাচ্ছেন না বা হুট করে বাসার ইলেকট্রিক বা পানির লাইন নষ্ট হয়ে গেল। এমন অবস্থায় দক্ষ লোক ডেকে কাজ সারানো কিন্তু অনেক সময় বেশ হ্যাঁপার কাজ। এ ধরনের সিচুয়েশনের জন্য একেবারে পারফেক্ট অপশন হতে পারে সেবা। অ্যাপটির মাধ্যমে বাসা শিফটিং, ইলেক্ট্রিক্যাল বা প্লাম্বিং সার্ভিসের পাশাপাশি কার রেন্টাল, পেস্ট কন্ট্রোল, গ্যাজেট ও হোম অ্যাপ্লায়েন্স রিপেয়ারিং, লন্ড্রি সার্ভিস ইত্যাদি জিনিস পাবেন। অ্যাপ থেকে উপরোক্ত যেকোনো সার্ভিস অর্ডার করুন, পছন্দের দোকান বা

লোক ঠিক করুন, কিছুক্ষণের মধ্যেই আপনার বাসায় এসে সার্ভিস প্রদান করা হবে। সবমিলিয়ে, বাসার বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে বেশ কার্যকর হবে এই অ্যাপটি, একইসাথে আপনার বাড়তি কাজ বা ঝামেলাও কমবে।

লেনদেনের ঝামেলা কমাবে বিকাশ অ্যাপে
টাকা-পয়সার লেনদেনের ঝক্কি এখন অনেকটাই কমিয়ে দিয়েছে মোবাইল ব্যাংকিং সার্ভিস। অন্য কারো কাছে টাকা পাঠানো অথবা গ্রহণ, বিভিন্ন পেমেন্ট সম্পন্ন করা কিংবা জরুরি প্রয়োজনের মোবাইল রিচার্জ করার জন্য বর্তমান অ্যাপ মার্কেটে রয়েছে বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাপ যার মধ্যে বিকাশ-এর কথা না বললেই নয়। সহজ-সুন্দর ইন্টারফেসের এই অ্যাপটি ব্যবহার করে মুহূর্তেই টাকা লেনদেন শেষ করতে পারবেন। ফোনবুকে নাম্বার সেইভ করা থাকলে আলাদাভাবে নাম্বার এন্ট্রি করারও দরকার হবে না। এছাড়া দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন বিল পরিশোধও করতে পারেন, অফার থাকলে ক্যাশ ব্যাক সুবিধাও পাবেন। এছাড়া কত টাকা এল বা গেল সে হিসেব অ্যাপের ইন্টারফেস থেকেই দেখে নিতে পারবেন। সবমিলিয়ে, লেনদেন আরো সহজ করে আপনার কাজের পরিমাণ ও দুশ্চিন্তা কিছুটা হলেও কমিয়ে দিবে এই অ্যাপ।


- নাসিফ রাফসান