শনিবার,২০ অক্টোবর ২০১৮
হোম / জীবনযাপন / সন্তানের যৌনবিষয়ক সচেতনতা শুরু হোক এখনই
০৯/০৬/২০১৮

সন্তানের যৌনবিষয়ক সচেতনতা শুরু হোক এখনই

-

আজকের এই আধুনিক যুগে এসেও আমাদের সমাজে সেক্স বিষয়টি একটি ট্যাবু। শৈশব বা কৈশোর দূরে থাক, প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পরও এ বিষয়ে খোলামেলা আলোচনা আমাদের দেশে ভয়ানক বাঁকা চোখেই দেখেন অনেক অভিভাবক। আর এজন্যই যৌন সচেতনতা নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে শিশুরা থাকে অন্ধকারে।

এছাড়াও সেক্সুয়াল হ্যারাসমেন্ট কিংবা ধর্ষণ সম্পর্কে সঠিক জ্ঞান ও সচেতনতার অভাব আমাদের সমাজে বিশেষভাবে লক্ষ্য করা যায়। অথচ সঠিক সময়ে এসব বিষয়ে আলাপচারিতা আর সন্তানের জিজ্ঞাসাগুলোর সঠিক জবাব পারে একটি শিশুর বিপথে যাওয়া ও বিপদে পরা রোধ করতে।

এড়িয়ে যাবেন না
সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো প্রশ্ন এড়িয়ে না যাওয়া। সন্তানের কৌতূহলকে দমিয়ে দেয়াটা অনুচিত। মনে রাখবেন, আপনার সন্তান প্রশ্ন করছে, এর মানে হলো সে আপনাকেই বিশ্বস্ত ভাবছে আর সঠিক উত্তরটি আশা করছে। সুতরাং তার ভরসার স্থানটি ক্ষতিগ্রস্ত করবেন না, ধৈর্য আর বিচক্ষণতার সাথে পুরো বিষয়টি সামলান। তবে সন্তানের বয়স অনুসারে তার সাথে কথা বলবেন। এক্ষেত্রে আগেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে পারেন।

যুক্তি আর উদাহরণ দিয়ে বোঝান
সন্তানের কোনো প্রশ্নের উত্তর যতটুকুই দিন না কেন, তা যেন গ্রহণযোগ্য হয়। যুক্তি সহকারে মূল বিষয়ে কথা বলুন, আপনার উত্তরের প্রেক্ষিতে তার কাছে আরও প্রশ্ন থাকতে পারে, সেসব মনোযোগ নিয়ে শুনুন আর জবাব দিন।

পূর্ব প্রস্তুতি নিয়ে তৈরি থাকুন
সন্তানের যৌনবিষয়ক জিজ্ঞাসার বেশিরভাগ প্রশ্নেই বাবা-মা অপ্রস্তুত হয়ে পড়েন। উত্তর দিতে পারেন না প্রস্তুতি না থাকার কারণে। কাজেই এরকম পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয় সেজন্য সন্তানের কাছ থেকে সম্ভাব্য প্রশ্ন যা যা আসতে পারে তার উত্তর আগেই তৈরি রাখুন, প্রয়োজনে ইন্টারনেটের সাহায্য নিন।

প্রয়োজনীয় সবদিক নিয়ে কথা বলুন
যৌন ধারণাটি একটি বিস্তৃত বিষয়। সন্তান যাতে এর সম্যক ধারণা পায় সেদিকে খেয়াল রাখুন। অবশ্যই সবার আগে বয়ঃসন্ধি বিষয়ে তাকে বিস্তারিত জানান। তার প্রশ্ন জেনে নিন, উত্তর দিন। এই বয়সে স্বাভাবিকভাবেই নিজ শরীর এবং বিপরীত লিঙ্গের শরীরের ব্যাপারে কৌতূহল আর জিজ্ঞাসা থাকে। তাই এসব ব্যাপার খোলাসা করুন। ভুল ধারণাগুলো দূর করুন। অনিরাপদ যৌন সম্পর্ক আর তার কুফল সম্পর্কেও জানান তাকে। মনে রাখবেন, আপনার সন্তানকে নিরাপদ রাখা আপনারই দায়িত্ব। তাই তাকে যৌন বিষয়ে ধারণা দেওয়াও আপনারই কর্তব্য।

আছে সাহায্যের নানা প্ল্যাটফর্ম
আজকাল সেক্স এডুকেশনে সাহায্য করার জন্য বিভিন্ন মাধ্যম রয়েছে। বিভিন্ন ইনফরমেটিভ ব্লগ আর মোবাইল অ্যাপস রয়েছে, যা বিশেষভাবে উঠতি বয়েসিদের জন্য বানানো। আপনার সন্তানকে এসব মাধ্যমের সাথে পরিচয় করিয়ে দিন। এছাড়াও যদি স্কুল ভিত্তিক সেক্স এডুকেশনের ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে, অভিভাবক হিসেবে এতে আপনার সন্তানের অংশ নেয়া নিশ্চিত করুন আর স্কুল কর্তৃপক্ষকে নিয়মিত এমন প্রোগ্রাম চালাতে উৎসাহিত করুন।

সন্তানের সাথে সেক্স নিয়ে কথাবার্তা বলা একটি স্পর্শকাতর বিষয়, এতে কোনো সন্দেহ নেই। তাই কিছু বিষয়ে সতর্কতার বিকল্প নেই। যেমন-

* কথা বলার সময় শান্ত থাকবেন, কোনো বিষয়েই মাথা গরম করবেন না। আপনার মেজাজের উপরেই আপনার সন্তান আপনাকে কীভাবে গ্রহণ করবে তা নির্ভর করে।

* বাচ্চার বয়স বুঝে তার সাথে কথা বলবেন এবং ফ্যাক্ট শেয়ার করবেন। এক্ষেত্রে বিভিন্ন প্যারেন্টিং ওয়েবসাইট আর ব্লগের সহায়তা নিতে পারেন। বয়স অনুসারে বিভিন্ন প্রশ্নের নির্দিষ্ট উত্তরের নমুনা সেখানে পাবেন, চোখ বুলিয়ে নিন।

* অবশ্যই বাউন্ডারির দিকে খেয়াল রাখতে হবে, কতটুকু শেয়ার করা উপযুক্ত আর কতটুকু নয় তা খেয়াল রাখবেন।

* সন্তানের সাথে নিজের সেক্স লাইফের উদাহরণ দিয়ে কোনো কথা বলবেন না, এক্সপার্টদের মতে এটি একেবারেই অ্যাপ্রোপ্রিয়েট নয়।

- তানভীর জাহান