শনিবার,২০ অক্টোবর ২০১৮
হোম / বিবিধ / ঈদের কেনাকাটায় কিচেন গ্যাজেটস
০৮/১৮/২০১৮

ঈদের কেনাকাটায় কিচেন গ্যাজেটস

-

একটি বছর পর আবারো চলে এল ঈদ-উল-আজহা। কোরবানি ঈদ মানেই প্রচুর রান্নাবান্নার ঝক্কি। তাই রান্নাঘরে আপনার কাজ আরেকটু সহজ করে দিতে খোঁজ দেয়া হোল কিচেন গ্যাজেটস-এর, যা আপনাকে দিতে পারে একটু স্বস্তি।

রেফ্রিজারেটর
খাবার সংরক্ষণের জন্য ফ্রিজে একটু বাড়তি জায়গা সবাইই চায়, ঈদুল আজহায় তো সেটা অবশ্যই। কারণ, এই ঈদে মাংস এবং খাবারদাবার সংরক্ষণের প্রয়োজনীয়তা আরও বেশি বেড়ে যায়। তাই কেউ যদি নিজের রেফ্রিজারেটরটি পরিবর্তন করতে চায়, ঈদই হতে পারে এর সেরা সময়। অনেক দোকান এবং অনলাইন শপে এ উপলক্ষে দিচ্ছে নজরকাড়া ছাড়ও। তবে রেফ্রিজারেটর কেনার সময়ে খেয়াল রাখবেন তার স্টোরেজ স্পেস যেন আপনার প্রয়োজন অনুসারে হয় এবং তা সহজে ব্যবহারযোগ্য হয়। অন্যথায় আপনার গ্যাজেটটি আপনার কাজ বাড়াবে বই কমাবে না। আমাদের দেশে মূলত ১০০ থেকে ৬০০ লিটার ধারণ ক্ষমতার ফ্রিজ বিক্রি হয়। ব্র্যান্ডভেদে দাম সাধারনত ২০ থেকে ৫০ হাজার টাকার মধ্যে থাকে।

প্রেশার কুকার
মাংস ভালোভাবে রান্না করার অন্যতম ভালো উপায় হচ্ছে তা প্রেশার কুকারে রান্না করা। প্রেশার কুকারে রান্না করা খাবারকে সুস্বাদু করে তো বটেই উপরি পাওনা হিসেবে আপনার রান্নাঘরে থাকার সময়কে কমিয়ে আনে অনেকাংশে। বাজারে ইলেকট্রিকের পাশাপাশি গ্যাস স্টোভের জন্যও প্রেশার কুকার পাওয়া যায়। তবে দেরি কেন? আজই সংগ্রহ করে ফেলুন আপনার পছন্দের প্রেশার কুকারটি। বর্তমান বাজারে এক থেকে ছয় লিটার ধারণক্ষমতার প্রেশার কুকার পাবেন। ব্র্যান্ড ও দামভেদে ৭০০ থেকে তিন হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যাবে প্রেশার কুকার। তবে ফিচার ও ব্র্যান্ডভেদে এর দাম আরও বাড়তে পারে।

মিক্সার গ্রাইন্ডার
মিক্সার গ্রাইন্ডারকে ততটা গুরুত্বের সাথে দেখা হয় না। তবে দুটো কারণে তা হতে পারে আপনার রান্নাঘরের অপরিহার্য অংশ। প্রথমত তা আপনার রান্নায় প্রয়োজনীয় মশলা যেমন আদাবাটা, রসুনবাটা ইত্যাদি ঠিকভাবে রান্নায় ব্যবহার করতে খুব সাহায্য করতে পারে মিক্সার গ্রাইন্ডার। দ্বিতীয়ত, আপনি যদি অনেক মানুষের জন্য রান্না করতে চান তবে হাতে মিক্সার গ্রাইন্ডারের কাজ করা বেশ কষ্টকর এক ব্যাপার হয়ে দেখা দিতে পারে। এমন ঝামেলায় পড়তে না চাইলে একটি মিক্সার গ্রাইন্ডার রাখতে পারেন আপনার রান্নঘরে। বাজারে নানা ব্র্যান্ডের গ্রাইন্ডার পাওয়া যাবে ১৫০০ থেকে পাঁচ হাজার টাকার মধ্যে।

চপার
রান্নাঘরের আরেকটি প্রয়োজনীয় গ্যাজেট হোল চপার। চপিং বোর্ডে প্রতিটি অংশকে চপ করা বেশ ঝামেলার কাজ। ঘরে মেহমান আমন্ত্রণ জানিয়ে রাখলে তো কোনো কথাই নেই। আপনার এ ঝামেলাকে দূর করতে বাজারে আছে চপার। একটা ভালো মানের চপার হবে আকারে ছোট, সহজে বহনযোগ্য, যে-কোনো পরিস্থিতির জন্য পারফেক্ট এবং তা আপনার কাজকে অর্ধেকেরও কম সময়ে শেষ করতে সাহায্য করবে।

ইন্ডাকশন কুকার
রান্নার সব যোগাড়যন্তর করার পর যদি আপনি রাঁধতে বসেন এমন চুলা নিয়ে যা নিয়ন্ত্রণে আনতেই অনেক সময় লেগে যায় তবে তা আপনার কঠোর পরিশ্রমে পানি ঢেলে দিতে পারে। আর তাই রান্নাঘরে একটি ভালো গ্যাস স্টোভ, গ্যাস কুকার কিংবা ইন্ডাকশন কুকারের প্রয়োজনীয়তা অনেক।

কিচেন ওভেন
হয়তো ভেবে বসতে পারেন ঈদুল আজহায় রান্নাঘরে ওভেন এনে কি কাজ? কিন্তু বিশ্বাস করুন, ভোজনরসিকদের জন্য রান্নাঘরে কিচেন ওভেন অত্যাবশ্যকীয় এক বস্তু। কেক, ডোনাট, পাই, পুডিং বানানোয় কিচেন ওভেনের কোনো জুড়ি নেই। এতে আপনি মাংসের বিভিন্ন পদও তৈরি করতে পারবেন কোনোরকম ঝক্কি ছাড়াই। ঈদের আগে রান্নাঘরে একটি ওভেন নিয়ে আসুন এবং রান্নার বাহার দেখিয়ে চমকে দিন ঘরের সবাইকে। মানভেদে একেক ব্র্যান্ডের ওভেনের দাম একেক রকম।

- নেয়ামত উল্ল্যাহ