বৃহস্পতিবার,১৮ জানুয়ারী ২০১৮
হোম / ফ্যাশন / জমকালো আনারকলি
১২/১৮/২০১৭

জমকালো আনারকলি

-

ভারতবর্ষের মোঘল সাম্রাজ্যের সময় থেকেই আনারকলি স্যুট প্রচলিত, এবং এখনও ট্রেন্ড হয়ে এটি কয়েক বছর পরপর ফিরে আসে। আর এর ধারাবাহিকতায় এবছরও চলছে আনারকলি কামিজের ফ্যাশন, তা সেটা রোমান্টিক কোনো ডেট অথবা বন্ধুদের সাথে আউটিং-এর জন্য-ই হোক না কেন। তবে ট্র্যাডিশনাল আনারকলি কামিজগুলো কিছুটা ভারি কাজের হওয়ায় এটি বিশেষ অনুষ্ঠান- যেমন বিয়ে বা জন্মদিনের দাওয়াতে পড়ে যাওয়ার জন্য উপযুক্ত, তাই বিশেষত বিয়ের মৌসুমে আনারকলি কামিজ হট ট্রেন্ড হয়ে ওঠে।

আনারকলির ডিজাইন ও স্টাইলের ভিন্নতা
প্রথমত আনারকলি কেনার আগে এর ধরন, ডিজাইন ও দাম সম্পর্কে জানুন। আনারকলি সাধারণত ভারি কাজের ও কয়েক লেয়ার কাপড় দিয়ে তৈরি হওয়ায় বাংলাদেশের মতো গরম-প্রধান দেশে সবসময় পরা যায় না। তাই অফিসে কটন বা কটন সিল্কের, বিয়ের অনুষ্ঠানে লম্বা ও ঘনকাজের, জন্মদিন বা বিশেষ অনুষ্ঠানের জন্য গাউনের মতো সিল্ক বা মসলিন কাপড়ের ভারি এমব্রয়ডারির ও উৎসবের সময়ের জন্য স্টাইলিশ এথনিক ধরনের আনারকলি বেছে নিন। এছাড়া দৈনন্দিন আউটিং-এ বের হওয়ার জন্য সাধারণ প্রিন্টের ও হালকা কাজের ছোটো আনার কলি বেছে নিতে পারেন।

বডি সাইজ
আনারকলি কেনাকাটায় কিছুটা সতর্ক থাকলেই ভালো, কারণ বেশির ভাগ সময় দেখা যায় প্লাস-সাইজের নারীদের যেমন রেশম বা জর্জেটে মানায়, পাতলা মেয়েদের নিচে লেস দেয়া সুতির আনারকলিতে ভালো দেখায়। লম্বা মেয়েদের জন্য এক্ষেত্রে লম্বা ঘের দেয়া আনারকলিই ভালো। অনেক সময় অপেক্ষাকৃত খাটো মেয়েদের জন্য সঠিক সাইজের আনারকলি পাওয়া যায় না। সেক্ষেত্রে আপনার পছন্দের ডিজাইনের একটি স্যাম্পল টেইলরকে দিয়ে তৈরি করে ফেলুন মাপমত আনারকলি স্যুট।

ফ্যাব্রিক
আনারকলির ক্ষেত্রে ফ্যাব্রিক বুঝে কেনাটা খুব জরুরি। যদিও কটন, লিনেন, লিনেন সিল্ক এবং হাতে বোনা উপকরণগুলি দিনের বেলায় পরার জন্য ভালো, পিওরসিল্ক, রেশম, খাদি ও পাটের তৈরি ম্যাটেরিয়াল রাতের বেলার সাথে যায়। তাছাড়া সংবেদনশীল ত্বকের জন্য নরম কটনের আনারকলি-ই শ্রেয়।

আনারকলি স্যুটের সাথে আনুষঙ্গিক স্টাইলিং অনেক গুরুত্বপূর্ন। ফ্যাশনেবল এই আউটফিটে আপনার লুক পরিপুর্ণভাবে ফুটিয়ে তুলতে কিছু বিষয় খেয়াল রাখা প্রয়োজন।

লম্বা কানের দুল ও গলার গয়না
আনারকলি সাধারণত গ্ল্যামারাস রূপ তুলে ধরতে সাহায্য করে, আর এই লুক কমপ্লিট করতে প্রয়োজন লম্বা দুল। যে-কোনো বিয়ে বা ফর্মাল অনুষ্ঠানে আনারকলির সাথে যায় পাথর বা কুন্দনের একজোড়া লম্বা কানের দুল। ক্যাজুয়াল আউটিং-এর জন্য নিতে পারেন রঙিন পার্ল বা ঝুমকা। এছাড়া খোলা অথবা গোল গলার আনারকলি স্যুটের সাথে ছিমছাম একটি নেকপিস-এর রাজকীয় লুকটিকে ফুটিয়ে তুলবে।

হাইহিল
আনারকলি জামা সাধারণত বেশ লম্বা হয়, বেশিরভাগ সময় এটি চুড়িদার পায়জামাকেও পুরোপুরি ঢেকে দেয়। তাই আপনার উচ্চতা যাই হোকনা কেন, নিজেকে আরও সুন্দর দেখানোর জন্য এবং আনারকলি-টিকে ফুটিয়ে তোলার জন্য বেছে নিন হাইহিল। হাইহিল ছাড়াও কোলাপুরি জুতির সাথেও দারুন মানাবে আনারকলি স্যুট।

সাথে ওড়না বা জ্যাকেট যোগ করুন
যদি আপনার আনারকলি সিম্পল হয়, তাহলে সাথে যোগ করুন ভারি বা রঙিন ওড়না অথবা মানানসই জ্যাকেট। জ্যাকেটের ক্ষেত্রে পরতে পারেন ভারি কাপড়; যেমন- জ্যাকুয়ার্ডস, টাফেটাস, পশমিউল, জিন্স অথবা ভারি সিল্ক। অন্যদিকে ওড়নার ক্ষেত্রে ফ্যাব্রিক ছাড়াও বিভিন্নভাবে একে গায়ে জড়াতে পারেন। আনারকলির বুক ও গলারদিকে ঘন কাজ থাকলে হালকা কোনো ওড়না কায়দা করে একপাশে বা গলায় রাখতে পারেন। অন্যদিকে সিম্পল আনারকলি হলে ভারি কাজের কোনো ওড়না জড়িয়ে দিতে পারেন এর উপর। ইদানীং অনেকেই আনারকলির সাথে কেপ পরে, এতে জামাটি আরো জমকালো হয়ে ওঠে।

হেয়ার স্টাইলিং
আপনার চুল সমান ও লম্বা হলে আনারকলির সাথে চুল ছেড়ে দিন; অন্যদিকে কিছুটা কোঁকড়া হলে খোঁপায় বেঁধে নিতে পারেন চুল। এছাড়াও বিভিন্ন স্টাইলের বেণীতে আপনার এথনিক লুক ফুটে উঠবে চমৎকারভাবে।

- নুসরাত ইসলাম