শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭
হোম / খাবার-দাবার / ব্যাচেলরদের জন্য রান্নাবান্না
১১/১৩/২০১৭

ব্যাচেলরদের জন্য রান্নাবান্না

-

চাকরি, পড়াশোনা আরও নানা কারনে অনেক ছেলে এবং মেয়ে পরিবার ছেড়ে একা কিংবা বন্ধুর সাথে বসবাস করেন। তাদের জন্য খাবার কষ্ট হয়ে ওঠে একটি বিশেষ মাথাব্যাথা। হোটেল আর কাজের লোকের হাতের রান্নায় না থাকে যত্ন আর না হয় তেমন স্বাদের। তাই আজ দেয়া হোল ব্যাচেলরদের জন্য কিছু সহজ রেসিপি যা তৈরি করতে নেই যেমন ঝামেলা আর খেতেও তেমনই স্বাদের।

রেসিপি ও ছবিঃ বীথি জগলুল

রেসিপিঃ ১ - স্প্যানিশ অমলেট

উপকরণ
ডিম- ৫-৬টি
সিদ্ধ আলু- মাঝারি, ২টি
পেঁয়াজ কিমা- আধা কাপ
কাঁচামরিচ কিমা- ৬-৭টি
গোলমরিচ গুঁড়া- স্বাদমতো
ধনেপাতা কুচি- ১ মুঠি (অপশনাল)
লবণ- স্বাদমতো
বাটার- ২ টেবিল চামচ

প্রণালি
বড়ো একটি বাটিতে ডিম, লবণ, গোলমরিচগুঁড়া নিয়ে খুব ভালোভাবে ফেটিয়ে নিন। সিদ্ধ আলু একটু বড়ো কিউব করে কেটে নিন।
প্যানে বাটার গরম করে আলাদা আলাদা করে আলু ও পেঁয়াজ ভেজে উঠিয়ে নিন। এইবার ডিমের মিশ্রণের সাথে আলু, পেঁয়াজ ও ধনেপাতা মিশিয়ে নিন।
একই প্যানে ডিমের মিশ্রণটি ঢেলে আঁচ কমিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন। সময় লাগবে দশ-১৫ মিনিট।
হয়ে গেলে প্লেটে ঢেলে নিন। ছুরি দিয়ে কেটে গরম গরম পরিবেশন করুন।

রেসিপিঃ ২ - ইজি সবজি পোলাও

উপকরণ
পোলাওয়ের চাল- ২ কাপ
মিহি গ্রেট করা গাজর- ১ কাপ
মটরশুঁটি- ১ কাপ
পটল কিউব- ৪-৫ টি
পেঁয়াজ কুচি- ৩-৪ টে চামচ
আদা, রসুন বাটা- দেড় টে চামচ করে
আস্ত জিরা- ১ চা চামচ (শাহজিরা হলে ভালো)
এলাচ/লং/গোলমরিচ- ৬-৭টি করে
দারুচিনি- ২টুকরা
তেজপাতা- ২টি
লিকুইড দুধ- ১ কাপ+ পানি দেড় কাপ
(দুধ জ্বাল করা হলে ভালো)
কাঁচামরিচ- ৬-৭টি
ঘি- ২ টেবিল চামচ
লবণ, তেল- পরিমাণমতো

প্রণালি
চাল ধুয়ে ২০ মিনিটের মতো ভিজিয়ে রেখে পানি ঝরিয়ে রাখুন।
ছোটো, ছোটো কিউব করে পটল কেটে নিন। সব সবজি চালের সাথে মিশিয়ে রাখুন। হাঁড়িতে তেল গরম করে জিরা ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজকুচি দিন।
পেঁয়াজ নরম হলে পানি ঝরানো চাল-সব্জির মিশ্রণ মিশিয়ে দিন। চাল খুব ভালোভাবে ভেজে নিন। ভাজতে ভাজতে চাল যখন ঝরঝরে হবে তখন পানি ও দুধ মিশিয়ে নিন।
পানি দেয়ার পর আদা-রসুন বাটা, লবণ, গরম মশলা, তেজপাতা মিশিয়ে নিন। আগেই ঢাকনা দেবেন না। আঁচ বাড়িয়ে দিন।
ফুটে উঠলে আঁচ মাঝারি রেখে জ্বাল করুন। চাল ও পানি যখন মাখা মাখা হবে তখন নীচে লোহার তাওয়া দিয়ে ঢাকনা দিয়ে দিন। কাঁচামরিচ দিয়ে আঁচ একদম কমিয়ে ২০-৩০ মিনিট দমে রাখুন।
এর মাঝে একবার নেড়েচেড়ে সমান করে দিয়ে আবার ঢাকনা লাগিয়ে দিন। নামানোর আগে ঘি ছড়িয়ে দিন।
হয়ে গেল সহজ সবজি পোলাও। বেরেস্তা ছড়িয়ে সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

রেসিপিঃ ৩ - লেবুপাতায় রুইমাছ

উপকরণ
রুইমাছের গাদা কিউব করা- আধা কেজি
পেঁয়াজ কুচি- ১/৪ কাপ
রসুন বাটা- ২ টেবিল চামচ
মরিচ গুঁড়া- ২ চা চামচ
তেল- ১/৪ কাপ
লবণ- স্বাদমতো
লেবুপাতা- ৪-৫টি
চেরা কাঁচামরিচ- ৩-৪টি
পানি- ১ কাপ

প্রণালি
রুইমাছের গাদার মাঝখানের কাঁটা ফেলে টুকরা করে নিন। এরপর মাছ পরিষ্কার করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।
মাছের সাথে লেবুপাতা ও কাঁচামরিচ ছাড়া সব উপকরণগুলি মেখে যে পাত্রে মাছ রান্না করবেন তাতে ঢেলে আধা ঘণ্টা ঢেকে রেখে দিন।
এতে করে মশলা মাছের ভেতর ভালো করে ঢুকবে। আধা ঘণ্টা পর মাছের পাত্রটি চুলায় বসিয়ে দিন। ফুটে উঠলে কম আঁচে ঢেকে রান্না করুন।
মাছ সিদ্ধ হয়ে তেল উপরে উঠলে লেবুপাতা ও কাঁচামরিচ দিয়ে কিছুক্ষণ দমে রেখে নামিয়ে নিন।
গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন ভিন্নস্বাদের লেবুপাতায় রুই মাছ।

রেসিপিঃ ৪ - ইজি বিফ ভুনা

উপকরণ
গরুর মাংস- ১ কেজি
পেঁয়াজ কুচি- ১/৪ কাপ
রসুন কুচি- আস্ত ২টি
আদা কুচি- ২ ইঞ্চির ১ টুকরা
আস্ত গরম মশলা- আন্দাজমতো
হলুদ,মরিচ,ধনিয়াগুঁড়া- ১ চা চামচ করে
জিরা গুঁড়া- ২ চা চামচ
গরম মশলা গুঁড়া- ২ চা চামচ
ভিনেগার - ২ টেবিল চামচ
তেল- ১/৪ কাপ
চিনি ও লবণ- স্বাদমতো
চেরা কাঁচামরিচ- ৭-৮টি

প্রণালি
ভিনেগার, জিরাগুঁড়া, গরম মশলাগুঁড়া, চিনি, ৩-৪ টা কাঁচামরিচ ছাড়া বাকি সব উপকরণ হাত দিয়ে খুব ভালোভাবে মেখে নিন।
মাখানো হলে শুধু হাত ধোয়া পানিটুকু দিয়ে একটি হাঁড়িতে চুলায় বসান। এসময় চুলার আঁচ মাঝারি রাখবেন।
ফুটে উঠলে আঁচ কমিয়ে ভিনেগার মিশিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। মাংস সিদ্ধ হয়ে গেলে চিনি দেবেন।
তেল ভেসে উঠলে বাকি কাঁচামরিচ, জিরা ও গরম মশলাগুঁড়া দিয়ে কিছুক্ষণ দমে রেখে নামিয়ে ফেলুন। গরম ভাত, খিচুড়ি কিংবা পোলাওয়ের সাথে গরম গরম পরিবেশন করুন।

রেসিপিঃ ৫ - চিকেন ভুনা

উপকরণ
চিকেন- দেড় কেজি ওজনের ১টি
পেঁয়াজ কুচি- ১/২ কাপ
থেঁতো করা রসুন- আস্ত ২টি
থেঁতো করা আদা- ১ ইঞ্চির ১ টুকরা
হলুদ, ধনে গুঁড়া- ১ চা চামচ করে
জিরা, মরিচ গুঁড়া- ২ চা চামচ করে
তেজপাতা- ৬-৬টি
দারুচিনি- ২-৩ টুকরা
তেল- ১/২ কাপ
লবণ- স্বাদমতো
গরম মশলা গুঁড়া- ২ চা চামচ
চেরা কাঁচামরিচ- ৪-৫ টি

প্রণালি
আপনার পছন্দমতো চিকেন টুকরা করে, পরিষ্কার করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।
কাঁচামরিচ ও গরম মশলা গুঁড়া ছাড়া সব উপকরণ চিকেনের সাথে ভালোভাবে মাখিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে চুলার আঁচ মাঝারি করে ৪-৫ মিনিট রান্না করুন। পাঁচ মিনিট পর ঢাকনা খুলে চিকেন কষিয়ে নিন।
কষানোর জন্যে আলাদা পানি দেয়ার দরকার নেই, চিকেন থেকে বের হওয়া পানি দিয়েই চিকেন কষান। কষানোর পানি সম্পূর্ণ শুকিয়ে গেলে ঝোলের জন্যে মাখামাখা পানি দিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন।
তেল ছেড়ে এলে কাঁচামরিচ ও গরমমশলা গুঁড়া মিশিয়ে নামিয়ে ফেলুন। গরম ভাত, খিচুড়ি অথবা পোলাওয়ের সাথে পরিবেশন করুন।

রেসিপিঃ ৬ - প্রেশারকুকারে ক্যারামেল পুডিং

উপকরণ
ডিম- ৪-৫টি
কনডেন্সড মিল্ক- ১টিন
এলাচ গুঁড়া- ১/২ চা চামচ
পানি ও চিনি- ক্যারামেলের জন্যে

প্রণালি
পুডিং-এর বাটিতে অল্প পানি ও চিনি দিয়ে ক্যারামেল করে নিন। ডিম, এলাচগুঁড়া ও কনডেন্সড মিল্ক একসাথে ফেটিয়ে নিয়ে বাটিতে ঢেলে নিন।
প্রেশারকুকারে এমনভাবে পানি দিন যেন পুডিং-এর বাটি বসানোর পর বাটির ভেতরে পানি না ঢুকে। বাটি বসিয়ে চুলার আঁচ মাঝারির চেয়ে একটু বেশি দিয়ে ১০-১৫ মিনিট রান্না করুন।
১৫ মিনিট পর চুলা থেকে নামিয়ে রাখুন। প্রেশাকুকারের ঢাকনা ইজিলি খুলে না আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।
বের করে সম্পূর্ণ ঠান্ডা করে তারপর সার্ভিং ডিশে উপুর করে বের করে নিন। ঠান্ডা হলে ছুরি দিয়ে কেটে পরিবেশন করুন।