শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭
হোম / বিবিধ / দূর করুন পোকা-মাকড়
১০/২৩/২০১৭

দূর করুন পোকা-মাকড়

-

বর্ষা যেন তেলাপোকা, মাছি, পিঁপড়া, ছারপোকা, বিছা ইত্যাদি পোকামাকড়ের উৎপাতের সুবর্ণ সময়। ঘরের বাতিটা বন্ধ করার সঙ্গে সঙ্গেই তেলাপোকার মচ্ছব শুরু হয়ে যায়! মাছি তো হরহামেশা আছেই। আছে মশাদের তুমুল উপদ্রব। শখ করে কাঠের কিছু একটা বানালেন; কিন্তু সেটা ঘুণে ধরে শেষ হয়ে গেল! সেই সঙ্গে মড়ার ওপরে খাঁড়ার ঘা হিসেবে আছে ইঁদুরের যন্ত্রণা। এই পোকামাকড়ের উপদ্রব থেকে কিন্তু আপনি খুব সহজেই রক্ষা পেতে পারেন, তাও আবার ঘরোয়া কিছু উপাদান ব্যাবহার করেই।

লেবুর রস
ঘরের বিভিন্ন কোনায় নিয়মিত লেবুর রস স্প্রে করুন, পিঁপড়ার উপদ্রব থেকে রক্ষা পাবেন।

নিমপাতা বা কালোজিরা
নিমপাতা একটি প্রাকৃতিক কীটনাশক। যদিও এটি পোকামাকড়দের যম, তবে মানুষের জন্য অনেক উপকারী। আলমারিতে বা কাপড় রাখার স্থানে তোশকের নিচে শুকনো নিমপাতা বা কালোজিরা কাপড়ে বেঁধে রাখুন। নিমপাতা পানিতে দিয়ে ঘর মুছুন। পোকা-মাকড়ের উপদ্রব কমবে।

দারুচিনি ও লবঙ্গ
দারুচিনি ও লবঙ্গ হচ্ছে মশলাজাতীয় উপাদান। তবে এটি তেলাপোকা কিংবা পিঁপড়া তাড়াতে কাজে আসে। দারুচিনি এবং লবঙ্গ আপনার ঘরে যেমন সুন্দর গন্ধ ছড়াবে তেমনি দূর করবে পিঁপড়ার যন্ত্রণা। ঘরের বিভিন্ন স্থানে কয়েক টুকরো দারুচিনি ও লবঙ্গ রেখে দিন। চিনির পাত্রের প্রতি পিঁপড়ার আগ্রহ অনেক বেশি, এটা সবাই জানি। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে সেখানে কয়েকটি লবঙ্গ রাখুন।

ফুটন্ত পানি
রান্নাঘরের বেসিনের পানির লাইনে ও ওয়াশরুমের লাইনগুলোতে নিয়মিত ফুটন্ত পানি ঢালুন। পোকামাকড়ের উপদ্রব কমে যাবে।

ভিনেগার
ঘরের মেঝে পরিষ্কার করার সময় পানিতে দুই টেবিল চামচ ভিনেগার মিশিয়ে নিন। এতে তেলাপোকা, পিঁপড়া এবং আরশোলা থেকে রেহাই পাবেন।

স্যাভলন
ঘর থেকে মশা-মাছি দূর করতে স্যাভলন দিয়ে ঘর পরিষ্কার করুন। এটি আপনার ঘর সেইসাথে জীবাণুমুক্তও রাখবে।

কর্পূর
মশা তাড়াবার একটা সহজ উপায় হলো কর্পূরের ব্যবহার, কয়েক টুকরো কর্পূর আধকাপ পানিতে ভিজিয়ে খাটের নিচে রেখে দিন। এতে নিশ্চিতভাবে বাসায় মশার উপদ্রব কমে যাবে।

রোদ
ঘরের লেপ, তোশক, বালিস, কাপড় ইত্যাদি মাঝেমধ্যে রোদে দিন। এতে পোকামাকড়ের সংখ্যা কমে যাবে।

লাইট
খাবার পোকার হাত থেকে রক্ষার জন্য খাবার টেবিল ও রান্নাঘরে চুলার ওপর কোনো লাইট দেয়া যাবে না।

আলোবাতাস ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা
প্রতিটি ঘরের কোণ অবশ্যই পরিষ্কার রাখতে হবে। ঘরে আলো-বাতাস প্রবেশ করার ব্যবস্থা করতে হবে।

- সাবিহা