বৃহস্পতিবার,২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭
হোম / জীবনযাপন / বিচ্ছেদের ঘোষণা অনলাইনে?
০৯/০৪/২০১৭

বিচ্ছেদের ঘোষণা অনলাইনে?

-

আপনি যদি ভেবে থাকেন, আপনাদের দুজনের সম্পর্কের বিচ্ছেদ একটা ব্যক্তিগত বা একান্তই নিজস্ব ব্যাপার, তাহলে সে-ব্যাপারটি মাথায় রেখে যে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। বিশেষ করে সময়টা যখন ইন্টারনেট আর সোশ্যাল মিডিয়ার তখন ব্যক্তিগত এবং সর্বজনীনের সীমারেখাটা মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়। এই যেমন কিছুদিন আগে কয়েকজন কাপল-এর ব্রেকআপের ঘটনা ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়ে যায়। যেখানে জনাবিশেক প্রাক্তন-যুগল তাদের ‘ব্রেক-আপ শট’ প্রকাশ করলে তুমুল আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে। এ-ধরনের ঘটনা যে মানুষ সবসময় ইতিবাচকভাবে নেয় তা কিন্তু না, বরং অনেক সমালোচনা ও তিক্ত অভিজ্ঞতারও জন্ম দেয়। এসব আপনাকে ভাবিয়ে তুলতে পারে যে সম্পর্ক-বিচ্ছেদের প্রতিক্রিয়া কি আসলেই অনলাইনে আসা উচিত বা প্রকাশ করলেও কতটা। তাই সম্পর্কের বিচ্ছেদ জাতীয় একান্ত নিজের ব্যাপারগুলো অনলাইন জগতে প্রকাশের ব্যাপারে সাবধান হওয়া উচিত।

অম্ল-মধুর মলিনতা কি প্রকাশ্যে আশা উচিত?
অভিজ্ঞরা বলেন সম্পর্ক-বিচ্ছেদ বা ‘ব্রেক আপ’ অনেক ক্ষেত্রেই খুবই বাজে ও তিক্ত হতে পারে। সেক্ষেত্রে দেখা যায় একজন আরেকজনের নামে বিষোদ্গার করেন, নানা অভিযোগ তোলেন। আপনার এমন প্রতিক্রিয়ার প্রকাশে হয়তো আপনি অনেকের সহমর্মিতা ও সহানুভূতি পাবেন। কিন্তু দিন শেষে এসব আপনাকে এদের অনেকের কাছেই ঘৃণ্য ও হাস্যকর করে তুলবে। বড় কোনো সমস্যাতেও জড়িয়ে পড়তে পারেন খুব সহজে।

প্রাক্তন সঙ্গীকে কি অনুসরণ করা উচিত?
অনেকেই প্রাক্তন সঙ্গীকে ফেসবুকে ছদ্মবেশে অনুসরণ করেন। বিশেষজ্ঞরা বলেন এমনটা একদমই করা উচিত না। বরং আপনার উচিত সামাজিক মাধ্যম থেকে তাকে ‘আনফলো’ করা। যাতে করে তার কর্মকান্ড আপনাকে দেখতে না হয়। এটি আপনার মর্মবেদনা অনেকখানি প্রশমিত করতে পারবে। আর কথায় বলে, চোখের আড়াল তো মনের আড়াল।

অনলাইনে সম্পর্ক-বিচ্ছেদের ঘটনা কি উদ্যাপন করা উচিত?
প্রায়ই দেখা যায় সম্পর্ক-বিচ্ছেদের পর অনেকে বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে কীভাবে জীবনকে ‘উপভোগ’ করছে তা সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশ করে থাকে। উল্লাস প্রকাশ করার এমনতর মাত্রা আশপাশের অনেককেই বিরক্ত করতে পারে। এমনকি তা আপনার ব্যক্তিত্বের নিচতা ও পূর্ববর্তী সম্পর্কের প্রতি কপটতার বহিঃপ্রকাশও ঘটায়।

তাহলে কি একটা ভিডিও তৈরি করবেন?
ধরা যাক, আপনি ফেসবুক লাইভে এসে আপনার হতাশার কথা বলছেন বা কেন বিচ্ছেদ হলো তা ব্যাখ্যা করলেন। কেমন হবে ব্যাপারটা? বিশেষজ্ঞরা বলেন, তা করা একদমই ঠিক না। তার চেয়ে ভালো এই সময়টুকু আপনি অন্য কোনো সৃজনশীল কাজে দিন, তাতে আপনারই লাভ হবে এবং বিচ্ছেদের বিষাদও ভুলে থাকতে পারবেন।

ফিরে আশার জন্য অনুনয় করবেন কি?
সম্পর্ক ভেঙে যাওয়া, সম্পর্ক তৈরি হওয়ার মতোই একটা স্বাভাবিক ব্যাপার। বিচ্ছেদের অভিজ্ঞতা আপনারও হতে পারে। এমন অভিজ্ঞতায় ধীরস্থির হয়ে চিন্তা করুন। নিজেকে একটু সময় দিন। পুরনো সম্পর্কে ফিরে যাওয়ার যৌক্তিকতা বিচার করুন। অনেক সময় সাবেক সঙ্গীকে ফিরে পাওয়ার আশায় অনুনয়-বিনয় করা আরও তিক্ততার জন্ম দিতে পারে। মন খারাপ রূপ নিতে পারে সীমাহীন হতাশায়।

- আবরার আওসাফ