শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭
হোম / বিজ্ঞান-প্রযুক্তি / মোবাইল ফোনে পানি ঢুকলে
০৮/০৫/২০১৭

মোবাইল ফোনে পানি ঢুকলে

-

প্রকৃতির বুকে বর্ষা স্নিগ্ধ পরশ নিয়ে এলেও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন শহরাঞ্চলে বসবাস করা মানুষদের জন্য তা কিন্তু সবসময় আনন্দের উপলক্ষ নাও হতে পারে। এই যেমন ধরুন- সামান্য বৃষ্টিতে পানিবদ্ধ ঢাকার রাস্তায় চলাফেরা করার ব্যাপারটা। একটু বেখেয়ালে হলেই পানিভর্তি রাস্তায় রিকশাসহ বা খোদ ব্যক্তিই পড়ে যাওয়ার চিত্র তো হরহামেশাই দেখা যায়। আর তখন পকেটে যদি থাকে দামি মোবাইল ফোন তবে অবস্থাটা কী হবে ভেবে দেখেছেন?
আপনার শখের মোবাইল যদি পানিরোধী না হয় তবে ভিজে গেলে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। মনকি মোবাইলের ওপর চা-কফিও পড়লেও সমস্যা হতে পারে। হুট করে মোবাইলে পানি ঢুকে গেলে বা তা পানিজাতীয় কিছুতে পড়ে গেলে যা যা করতে পারেন-

দ্রুত ফোন বন্ধ করুন
ফোনে পানি ঢুকলে সবার আগে তা বন্ধ করে ফেলুন। এরপর তাড়াতাড়ি সিম আর ব্যাটারি খুলে শুকাতে দিন। তবে তা সরাসরি রোদে শুকাতে দেয়া যাবে না। মোবাইলের সঙ্গে যুক্ত অন্যান্য জিনিসপত্র যেমন চার্জার, হেডফোন, কভার সবই আলাদা করে ফেলুন। ফোনের স্ক্রিনগার্ডও এক্ষেত্রে খুলে নেয়া ভালো। কেননা এর নিচে বিন্দুমাত্র জমে থাকা পানি পরবর্তীসময় ক্ষতির কারণ হতে পারে।

ফোন ভালো করে মুছে নিন
এরপর মোবাইল ফোন সতর্কতার সঙ্গে ভালো করে মুছে নিন। ফোনের ভেতর যত বেশি সময় ধরে তরল পদার্থ থাকবে নষ্ট হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা তত বেড়ে যাবে। বেশিক্ষণ পানি জমা থাকলে শর্ট সার্কিটও হয়ে যেতে পারে। এক্ষেত্রে ফোনের উপরের অংশ কাপড়ে মুড়ে নিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিতে পারেন। আর ভেতরের অংশ পাতলা কাপড় দিয়ে মুছে নিতে পারেন।

হেয়ার ড্রায়ারের বাতাসে শুকাবেন না
অনেকেই চিন্তিত থাকা অবস্থায় হাতের কাছে যা পান তার মাধ্যমেই পানি শুকাতে লেগে যান। এই যেমন হেয়ার ড্রায়ারের গরম বাতাসে তাড়াতাড়ি পানি শুকাবে ভেবে পানিতে পড়া ফোন সঙ্গে সঙ্গে ড্রায়ারের সামনে রাখেন অনেকেই। প্রকৃতপক্ষে ফোনে লেগে থাকা পানি শুকানোর জন্য গরম বাতাসের সামনে ধরলে ক্ষতির সম্ভাবনা বরং বেড়ে যায়, এমনকি ভেতরের যন্ত্রাংশ একেবারে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। এক্ষেত্রে উন্মুক্ত স্থানের প্রাকৃতিক বাতাসই ভালো। এছাড়া এয়ার কন্ডিশনোরের ভেন্টের সামনে কিছুক্ষণ ধরে রাখাও যেতে পারে।

ব্যাটারি পরীক্ষা করুন
ফোনের ব্যাটারি খুলে তাও পরীক্ষা করে নিতে হবে যে ঠিক আছে কিনা। সাধারণত ব্যাটারিতে সাদা রঙের ক্ষুদ্র স্টিকার থাকে। পানির সংস্পর্শে এলে তা লাল বা গোলাপি রঙ ধারণ করবে এবং তা থেকে বোঝা যাবে ব্যাটারি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে কিনা।

ফোন টিনের কৌটা, চাল বা সিলিকা জেলের মধ্যে রাখুন
এরপর ফোনটি বাতাস চলাচল করতে পারে না এমন স্থান যেমন টিনের কৌটায় রেখে দিন। ড্রামভর্তি চালেও ফোন রাখতে পারেন কারণ চাল তা ভেজা জিনিস শুষে নিতে পারে। এছাড়া সিলিকা জেল-এ ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টা ফোন রাখতে পারেন। ফোন রিস্টার্ট করার আগে ২৪ ঘণ্টা এ-অবস্থায় রাখতে হবে।

- শাহরিয়ার মাহী