সোমবার,২৩ অক্টোবর ২০১৭
হোম / খাবার-দাবার / ঈদ রেসিপি - মোস্তারিয়া ইতি
০৬/২২/২০১৭

ঈদ রেসিপি - মোস্তারিয়া ইতি

-

১। হানি গার্লিক প্রন

উপকরণ
গলদা চিংড়ি - ১ কেজি (বেশি বড় নয়)
মধু - ৪ টেবিল চামচ
রসুন - ৬-৮ টি কোয়া (থেঁতলানো)
আদা - ২ ইঞ্চি (বেশি মিহি না করে বাটা)
তেল - ৪ টেবিল চামচ (সয়াবিন বা অলিভ অয়েল)
শুকনো মরিচ ফ্লেক - ১ টেবিল চামচ
পাতলা সয়াসস - ২ টেবিল চামচ
ভিনেগার - ২ টেবিল চামচ
ঘন সয়াসস - ১ টেবিল চামচ
লবণ - (প্রয়োজন হলে, সয়া সস-এর লবণেই সাধারণত হয়ে যায়।)
কাজুবাদাম - ১৫-২০টি

প্রণালি
চিংড়ির মাথা ফেলে, লেজের অংশ বাদে খোসা ছাড়িয়ে রাখুন, পিঠ বরাবর চিরে ভেতরে কালো শিরাটা ফেলে দিন।
ভারি প্যানে বা নন স্টিক প্যানে তেল দিন, তেল গরম হলে রসুন আর আদা দিয়ে ভাজুন, সুগন্ধ বের হলে সয়া সস, মধু, ভিনেগার একসঙ্গে দিয়ে দিন, ফুটে উঠলে চিংড়ি দিন, হাল্কা নেড়ে চেড়ে রান্না করুন। অর্ধেক শুকনো মরিচ ফ্লেক দিন।
সস ঘন আর আঠালো হয়ে এলে কাজু বাদাম দিন, এরপর নেড়ে নামিয়ে নিন।
সার্ভিং ডিশে নিয়ে উপরে পাতলা গোল গোল করে কাটা পেঁয়াজ কলি, সাদা তিল আর বাকি শুকনো মরিচ ফ্লেক ছড়িয়ে পরিবেশ্ন করুন।

২। নারকেল দুধে মাশরুম মোরগ পোলাও

উপকরণ
বড় এলাচ- ৪টা
এলাচ- ৮-১০টা
জায়ফল- ১টা
জৈত্রী- ১ চা চামচ
লবঙ্গ- ৮-১০টা
গোল মরিচ- ২ টেবিল চামচ
ধনে- ১ চা চামচ
জিরা- ২ চা চামচ
দারুচিনি- ২ ইঞ্চি ২টি
(উপরের উপকরণগুলো টেলে মিহি গুঁড়ো করে নিতে হবে)
বেরেস্তা- ৪ কাপ
পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ
আদা বাটা- ২ টেবিল চামচ
রসুন বাটা- ২ টেবিল চামচ
মরিচগুঁড়ো- ১ টেবিল চামচ
গোলাপজল- ১ টেবিল চামচ
কেওড়া- ১ টেবিল চামচ
পুদিনা পাতা- ২ কাপ
টকদই- ২ কাপ
ঘি- ৪ টেবিল চামচ
ঘন নারকেল দুধ- ২ কাপ
কিছু কিশমিশ- (ইচ্ছানুযায়ী)
কিছু আলুবোখারা- (ইচ্ছানুযায়ী)
বাটন মাশরুম- ১০-১২টি
টমেটো কেচাপ- ২ টেবিল চামচ
চিনি- ১ টেবিল চামচ
লবণ (পরিমাণমতো)
মুরগি- ২টি (১ কে জি ওজনের)
চিনিগুঁড়া পোলাও- চাল ১ কেজি

প্রণালি
চিনিগুঁড়া চাল ধুয়ে ভিজিয়ে রাখুন।
মুরগি ৮ পিস করে কেটে ধুয়ে রাখুন।

ম্যারিনেশন-
২ কাপ টকদই, ১ চা চামচ মরিচগুঁড়ো, ১ কাপ নারকেল দুধ, ১ টেবিল চামচ ঘি, টমেটো কেচাপ, ২ টেবিল চামচ গুঁড়ো করা মশলা, ২ চা চামচ আদা বাটা, ২ চা চামচ রসুন বাটা, একটু চিনি আর পরিমাণমতো লবণ, ১ টেবিল চামচ কেওড়া, ১ টেবিল চামচ গোলাপ জল, ১ কাপ বেরেস্তা, ১ কাপ কুচিকরা পুদিনা মিশিয়ে মুরগি ১ ঘণ্টা ম্যারিনেট করুন।
ম্যারিনেট হয়ে গেলে, বড় কড়াইয়ে সয়াবিন তেল গরম করুন, সঙ্গে ২ টেবিল চামচ ঘি দিন, পেঁয়াজকুচি, রসুনবাটা আর আদা বাটা দিয়ে কষান, ম্যারিনেড, গুঁড়ো করা মশলা ২ টেবিল চামচ মুরগি দিন, ভেজে ভেজে কষান। মুরগি সিদ্ধ হয়ে আসলে বাকি নারকেল দুধের অর্ধেকটা দিন। ঢেকে রান্না করুন। বেশি ঝোল থাকবে না। মুরগি হয়ে গেলে নামিয়ে রাখুন।
এবার, হাঁড়িতে ফুটন্ত পানিতে একটু লবণ, ২টা তেজপাতা, ৩-৪টা লবঙ্গ, ১টা বড় এলাচ, ২টা এলাচ দিন, একটু দারুচিনি দিন, ২ টেবিল চামচ সয়াবিন তেল দিন, ভিজিয়ে রাখা চাল দিন, চাল ৮০% হয়ে গেলে নামিয়ে পানি ঝরিয়ে নিন।
বড় সসপ্যানে প্রথমে মুরগির টুকরোগুলোর অর্ধেকটা ছড়িয়ে দিন, এরপর ওপরে অর্ধেকটা চাল ছড়িয়ে দিন, ওপরে ১ টেবিল চামচ ঘি, অর্ধেক মাশরুম স্লাইস করে ছড়িয়ে দিন, একটু নারকেল দুধ, কিসমিস, (চাইলে পেস্তা, কাজু বাদাম, আলু বোখারা দিতে পারেন), বাকি বেরেস্তার অর্ধেকটা ছড়িয়ে দিন, অল্প কুচি আদা দিন, কিছু পুদিনা পাতা দিন, ১ চা চামচ গোলাপ জল আর কেওড়া দিন, মুরগির লবণ কম বা বেশি হিসেবে একটু লবণ ছড়ান, তিন চারটা কাঁচা মরিচ শুধু মাথাটা ভেঙে দিন একই ভাবে আবার আরেক স্তর সাজান।
এবার সস প্যানের অপর একটু ওজন দিয়ে দমে দিন, সরাসরি আগুনে দেবেন না। ৩০ থেকে ৪০ মিনিট দমে রেখে পরিবেশন করুন।

৩। গরুর মাংসের দো-পেঁয়াজা

উপকরণ
হাড়সহ গরুর মাংস- ১ কেজি (মাঝাড়ি টুকরো করা)
তেল- দেড় কাপ
ঘি- ২ টেবিল চামচ
পেঁয়াজ- ৭৫০ গ্রাম
বিফ স্টক- ৫০০ মি.লি.
পেঁয়াজ বাটা- ৩০০ গ্রাম
রসুন বাটা- ৪ চা চামচ
আদা বাটা- ৪ চা চামচ
কারি পাউডার- ৬ চা চামচ
হলুদ- ২ চা চামচ
মরিচগুঁড়ো- ১ টেবিল চামচ
গরম মশলা- ২ চা চামচ
ধনে- ১ চা চামচ
জিরা- ১ চা চামচ
শুকনো মরিচ- ৪-৫ টি
টমেটো পিউরি- ৪ টেবিল চামচ

প্রণালি
অর্ধেক পেঁয়াজ বেরেস্তা করে রাখুন। প্যানে তেল,ঘি নিয়ে কড়া জালে ধনে আর জিরা ভাজুন।
বাকি পেঁয়াজ বড় বড় টুকরো করে দিন, রসুন বাটা, আদাবাটা, কারি পাউডার, মরিচগুঁড়ো, হলুদ আর একটু পানি দিয়ে নেড়ে নেড়ে ভাজুন শুকনো মরিচ দিয়ে ভাজুন, পেঁয়াজগুলো স্বচ্ছ হয়ে এলে গরুর মাংস দিন পরিমাণমতো লবণ দিন আস্তে আস্তে ভাজুন।
মাংসে একটু বাদামি রং আসলে বিফ স্টক দিন, পেঁয়াজবাটা, টমেটো পিউরি, টকদই দিন ফুটে উঠলে কিছুক্ষণ পর পর নেড়ে দিন, পানি কমে ঘন হয়ে এলে যখন তেল ছেড়ে দিবে তখন গরম মশলা আর বেরেস্তা দিয়ে নেড়ে নামিয়ে নিন।
সার্ভিং ডিশে ঢেলে উপরে গুঁড়ো জিরা, ধনে ছড়িয়ে দিতে পারেন।

৪। অরেঞ্জ ক্রিমসিকেল সামার কেক

উপকরণ - কেকের জন্য
ময়দা - আড়াই কাপ (চেলে নিতে হবে)
চিনি - ২ কাপ
বেকিং পাউডার - ৩ চা চামচ
লবণ - ১ চা চামচ
ঘন দুধ - ১ কাপ
মাখন - আধা কাপ
ভ্যানিলা এসেন্স - ১ টেবিল চামচ
ডিম - ২ টি বড়
কমলার খোসা কুরানো (অরেঞ্জ যেস্ট) - ২ চা চামচ
পানি - আধা কাপ
টাটকা কমলার রস - ১/৪ কাপ

কমলা মিক্স
অরেঞ্জ জেলো পাউডার - ৩ আউন্স
ফুটন্ত পানি - ১+১/৪ কাপ
কন্ডেন্সড মিল্ক - ৩/৪ কাপ

টপিং
হেভি হুইপিড ক্রিম - ২+১/৪ কাপ
আইসিং সুগার - ১ কাপ
ভ্যানিলা এসেন্স - ২ চা চামচ

প্রণালি
ওভেনে ৩৫০ ডিগ্রি ফারেন হাইট (১৭৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস) তাপ দিন, ১৩ ইঞ্চি কেক প্যানে মাখন মাখান।
ময়দা, চিনি, বেকিং পাউডার, লবণ একটা বড় পাত্রে একসঙ্গে মিলিয়ে রাখুন।
আরেকটি পাত্রে দুধ, মাখন, ভ্যানিলা, ডিম, কমলার খোসা মিশিয়ে উপরের শুকনো মিশ্রণগুলোর সঙ্গে মেশান, ভালো করে বিট করে মেশান।
এবার পানি আর কমলার রস আস্তে আস্তে লো স্পিডে খুব ভালো করে মেশান।
কেকের পাত্রে ব্যাটার ঢালুন ২৮-৩০মিনিট বেক করুন। ওভেন থেকে কেক বের করে একটা চপস্টিক দিয়ে কেকে বেশ কিছু ফুটো করুন।
ফুটন্ত পানিতে জেলো পাউডার দিন। গলে না যাওয়া পর্যন্ত নাড়ুন।
কন্ডেন্সেড মিল্ক দিন, ভালো করে মেশান।
মিশ্রণটি কেকের উপর ঢালুন, কেকের ফুটোগুলোয় শুষে নিতে দিন, কেক ভালো করে ঠান্ডা হতে দিন।
হুইপড ক্রিম টপিং-এর জন্য হুইপিং ক্রিম, আইসিং সুগার, ভ্যানিলা একসঙ্গে হাই স্পিডে বিট করুন যতক্ষণ পর্যন্ত কেক সাজানর মতো শক্ত না হয়।
কেকের উপর টপিং দিন, কমলার ক্যান্ডি দিয়ে সাজিয়ে সার্ভ করার আগ পর্যন্ত ফ্রিজে রাখুন।

ক্রাস্ট
ডিম ও পানি বাদে সমস্ত উপকরণ ভালো করে মেশাতে হবে। এবার ডিম আর পানি মিশিয়ে রুটির মতো বেলে চারকোণা করে কেটে নিতে হবে।
এবার চার কোণা করে কাটা ক্রস্টের মাঝখানে একটু ফিলিং দিয়ে ছবির মতো করে খামের মত ভাজ করতে হবে। হার্ট শেপড কাটার দিয়ে শেপ কেটে উপরে বসিয়ে দিতে হবে।
ওভেনে ১৮০ ডিগ্রি তাপ দিয়ে ক্রস্ট হাল্কা সোনালি না হওয়া পর্যন্ত বেক করতে হবে ১৫-২০ মিনিট।

৫। আমন্ড ক্রাঞ্চ ভ্যানিলা চকলেট আইসক্রিম কেক

উপকরণ
ময়দা- ১ কাপ
মিষ্টি ছাড়া কোকো পাউডার- ১/৪ কাপ
বেকিং পাউডার- ২ চা চামচ
চিনি- ২/৩ কাপ
লবণ- আধা চা চামচ
ডিম- ২টি, বড়
মাখন- আধা কাপ
সাওয়ার ক্রিম- ২ টেবিল চামচ
ভ্যানিলা আইসক্রিম- ১ বড় বক্স (একটু নরম করে নেয়া)

গানাশ টপিং-এর জন্য
হাল্কা মিস্টি চকলেট চিপস- ১ কাপ
মাখন (লবণ ছাড়া) - ১/৪ কাপ
হেভি ক্রিম- ১/৪ কাপ
লাইট কর্ণ সিরাপ- ২ টেবিল চামচ
আইসিং সুগার- ১ কাপ
ভ্যানিলা এসেন্স- ১ চা চামচ
আলমন্ড, পেস্তা- আধা কাপ

প্রণালি
ওভেনে ৩৫০ ডিগ্রি ফারেনহাইট তাপ দিন, ১৩ ইঞ্চি বেকিং ডিশে বাটার পেপার দিন। এবার ময়দা, কোকো পাউডার, বেকিং পাউডার একসাথে চেলে নিন, লবন আর চিনি দিন।
অন্য একটি পাত্রে ৩/৪ কাপ মৃদু গরম পানি, ডিম, মাখন, ভ্যানিলা একসঙ্গে মিশিয়ে হাল্কা বিট করে নিন।
শুকনো ও তরল মিশ্রণ একসঙ্গে মিলিয়ে আস্তে নেড়ে মেশান। ব্যাটার খুব ঘন হবে। এবার ব্যাটার কেক প্যানে দিন ২০-২৫ মিনিট বা না হওয়া পর্যন্ত বেক করুন। হয়ে গেলে রেখে ঠান্ডা করুন।
একটা বড় পাত্রে আইস্ক্রিম নিন বড় চামচ দিয়ে নেড়ে নরম করুন। তবে বেশি নরম করা যাবে না।
কেকের মাঝ বরাবর কেটে দুটি লেয়ার তৈরি করুন।
এবার ১ স্তর কেক বিছান, অর্ধেক আইস্ক্রিম সমান করে দিন আরেক স্তর কেক দিন। তারপর বাকি আইস্ক্রিম দিয়ে ২ ঘণ্টা ফ্রিজে রাখুন।
গানাশ বানাতে ডবল বয়লার-এ চকোলেট গলান, মাখন, ক্রিম, কর্নসিরাপ দিয়ে মেশান। সব গলে গেলে, আইসিং সুগার আর ভ্যানিলা দিয়ে নাড়ুন।
গানাশ কিছুটা নরম থাকতে থাকতেই ফ্রিজ থেকে আইস্ক্রিম কেক বের করে উপরে গানাশ দিন, বাদাম ছড়িয়ে দিন। সার্ভ করার আগে অন্তত ৪ ঘণ্টা ফ্রিজে রাখুন।