বুধবার,২৬ Jul ২০১৭
হোম / স্বাস্থ্য-ফিটনেস / খাবার নিয়ে যত ভুল ধারণা
০৪/১৮/২০১৭

খাবার নিয়ে যত ভুল ধারণা

-

নিত্যদিনের খাদ্যতালিকার খাবারগুলো নিয়ে অনেকেই অনেকরকম মত দিয়ে থাকেন। এই যেমন কারো কাছে যে খাবারটি শরীর গঠনের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ মনে হয় সেই একই খাবার আবার অন্য কারো কাছে তেমন প্রয়োজনীয় নয়। এক্ষেত্রে কোনটা ঠিক বা শরীরের জন্য কোন খাবারটি কতটা প্রয়োজনীয় তা নিয়ে অনেকেরই ভুল ধারণা রয়েছে। এমন কিছু ভুল ধারণা ও তার পেছনের সত্যতা চলুন জেনে নেয়া যাক।

‘সবজি হিসেবে পাতাকপিই সবচেয়ে ভালো’
পাতাকপি বেশ ভালো পুষ্টি উপাদান সমৃদ্ধ। বিশেষজ্ঞদের মতে পাতাকপি ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকাংশে কমিয়ে দেয়। কিন্তু কিছু মানুষ মনে করেন, সবুজ শাক সবজিগুলোর মধ্যে পাতাকপি সবচেয়ে উত্তম। এটি মোটেও ঠিক নয়। একটি পরীক্ষায় বিশেষজ্ঞরা ১৭টি পুষ্টি উপাদানের ওপর ভিত্তি করে খাবারের একটি তালিকা তৈরি করেন। পাতাকপি এই তালিকার ১০টি খাবারের মধ্যেও নেই। অন্যান্য সবজির মতো পাতাকপিতেও পুষ্টি উপাদান রয়েছে; কিন্তু কেউ যদি তা খেতে পছন্দ না করেন তবে কোনো সমস্যা নেই।

‘ওমেগা-৩ পুষ্টি উপাদানের জন্য মাছের বিকল্প নেই’
ওমেগা-৩ মানব দেহের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান। শিশুদের মানসিক বিকাশের জন্য এবং প্রাপ্তবয়স্কদের হৃদযন্ত্র ভালো রাখতে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিডের তুলনা হয় না। সামুদ্রিক মাছে রয়েছে ডিএইচএ ও ইপিএ নামক প্রয়োজনীয় ২টি ফ্যাটি এসিড। অনেকে মনে করেন এটিই শরীরের জন্য যথেষ্ট। কিন্তু আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাটি এসিড এএলএ, যা শুধুমাত্র সবজি জাতীয় খাবার থেকে আসে। এটি ত্বক সুন্দর রাখে ও হৃদরোগ থেকে সুরক্ষা দেয়। তাই শরীরে ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিডের ঘাটতি দূর করতে সামুদ্রিক মাছের সঙ্গে সবজি জাতীয় খাবারও নিত্যদিনের খাদ্য তালিকায় রাখতে হবে।

‘ব্রাউন ব্রেড বেশি স্বাস্থ্যকর’
অনেকেই দোকানে গিয়ে ব্রাউন ব্রেড খোঁজেন কারণ তারা মনে করেন সাধারণ ব্রেডের তুলনায় এটি বেশি পুষ্টিকর। কিন্তু অনেকেই জানেন না যে আপনার পছন্দের ব্রাউন ব্রেড বানাতে কত কিছু মেশাতে হয় আর তা আপনার শরীরের জন্য কতটা ক্ষতিকর। তাছাড়াও সাধারণ ব্রেড ও ব্রাউন ব্রেড বানাতে একই পরিমাণ চিনি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। এক্ষেত্রে ১০০% গম থেকে তৈরি ব্রেড কেনাটাই শ্রেয়।

‘মন খারাপ হলে কেক খাওয়া উচিত’
কেক খুব মজাদার একটি খাবার আর মন খারাপ থাকলে আমরা কমবেশি সবাই এটি খেতে পছন্দ করি। আমরা অনেকেই মনে করি এটি আমাদের মন ভালো করে দেয়। আসলে মন ভালো করার সঙ্গে কেক খাওয়ার কোনো সম্পর্কই নেই। সাধারণভাবে আমরা যেসব খাবার খেতে পছন্দ করি, মন খারাপ থাকলে সেটিই আমাদের বেশি খেতে ইচ্ছে করে।

‘নিয়মিত ডিম খাওয়া ভালো’
কম বেশি সবাই জানে যে রক্তে অতিরিক্ত কোলেস্ট্রল হার্ট অ্যাটাকের অন্যতম কারণ। অনেকে এটা মনে করে ডিম বেশি খেলে রক্তে কোলেস্ট্রল বৃদ্ধি পায়। কিন্তু ডিমে কোলেস্ট্রলের পরিমাণ একদমই কম থাকে, আর ডিম আপনার শরীর গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ডিমের চেয়ে বেশি ফ্যাট আপনি গ্রহণ করেন দৈনন্দিন খাবারের সঙ্গে। তাই দিনে একটা ডিম আপনার শরীরের জন্য উপকারী।

‘প্রোটিন জাতীয় খাবার খেলেই পেশি গঠন করা যাবে’
বিশেষজ্ঞদের মতে পেশি গঠনের জন্য ৩টি বিষয়ের দিকে নজর দিতে হবে-যথাযথ ক্যালরি গ্রহণ, প্রয়োজনীয় প্রোটিন খাবারে রাখা ও নিয়মিত ব্যায়াম করা। শুধুমাত্র প্রোটিনকে পেশি গঠনের মূল উপাদান বলে মনে করে প্রয়োজনের চেয়ে অধিক পরিমাণে এ জাতীয় খাবার গ্রহণ করলে তা শরীরে ফ্যাট হিসেবে জমা হবে।

- রুবায়েত মহিউদ্দিন