বৃহস্পতিবার,২৭ এপ্রিল ২০১৭
হোম / খাবার-দাবার / বৈশাখী রেসিপি - সায়মা তাসনিম
০৪/০৯/২০১৭

বৈশাখী রেসিপি - সায়মা তাসনিম

-

কাটা মসলার দই চিকেন

উপকরণ
মুরগি- ২ কেজি (পিস করা)
পেঁয়াজ স্লাইস- ২ কাপ
আদা মিহিকুচি- ২ টেবিল চামচ
রসুন কুচি- দেড় চা-চামচ
শুকনামরিচ- ১০টি
এলাচ- ৪টি
দারুচিনি- ৪ টুকরা
তেজপাতা- ২টি
গোল মরিচ- ১ চা-চামচ
তেল- ১.১/৪ কাপ
টকদই- ১ কাপ
লবণ স্বাদঅনুযায়ী

প্রণালি

মুরগির পিসগুলোর সঙ্গে সব উপকরণ একত্রে মাখাতে হবে। ঢাকনা দিয়ে মুখ ঢেকে ৪০ মিনিট রান্না করতে হবে।

মাংস সিদ্ধ হলে এবং পানি শুকিয়ে গেলে দমে আরো ১০ মিনিট রাখতে হবে। হয়ে গেলে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে।

ইলিশ মাছের টক পাতুরি

উপকরণ
সিদ্ধ করে কাটা বেঝে নেয়া ইলিশ মাছের কিমা- ২ কাপ
সরষে বাটা- ১ টেবিল চামচ
পেঁয়াজ বাটা- দেড় টেবিল চামচ
হলুদ- দেড় চা-চামচ
মরিচ গুঁড়া- ১ টেবিল চামচ
নারিকেল বাটা- ২ টেবিল চামচ
সরিষার তেল- ৩ টেবিল চামচ
লবণ- ১ চা-চামচ
তেঁতুলের ঘন গোলা- ২ টেবিল চামচ
চিনি- ১ চা-চামচ
কলাপাতা বড়- ২টা

প্রণালি

সব বাটা মসলা, মাছ, তেল, গুঁড়া মসলা, লবণ এক সঙ্গে মিশিয়ে নিন। কলাপাতা হালকা গরম তাওয়ায় সেকে একটু নরম করে নিন।

এবার পাতায় হালকা তেল মাখিয়ে পাতার মাঝের শিরা ফেলে দিতে হবে। এবার পাতার মধ্যে মাছের পুর ভরে ভালোভাবে মুড়ে নিতে হবে।

এবার তাওয়ার উপর হালকা আঁচে ১০ মিনিট রেখে উল্টে দিন, আরো ১০ মিনিট রেখে দিন। পাতা পোড়া পোড়া হয়ে এলে নামিয়ে গরম ভাতে পরিবেশন করুন মজাদার ইলিশ মাছের পাতুরি।

কৈ মাছের স্টু

উপকরণ
কৈ মাছ- ৬টা
আলু- ২টি, মাঝারি
শিম- ৪টা
লাউশাকের ডাঁটা- ৬টা
গাঁজর- ১টা
পেঁয়াজ কুচি- আধা কাপ
রসুন বাটা- আধা চা-চামচ
আদা বাটা- আধা চা-চামচ
ধনে গুঁড়া- আধা চা-চামচ
তেল- ১ টেবিল চামচ
কাঁচামরিচ- ২-৩টা
লবণ পরিমাণমতো

প্রণালি

কড়াইতে তেল দিন, গরম হলে সব মসলা, লবণসহ তেলে দিন, একটু পানি দিয়ে মসলা কষিয়ে এতে আরো ১ কাপ পানি দিয়ে এর মধ্যে মাছগুলো দিন এবং কষিয়ে নিন।

কষানো হলে মাছ ঝোল থেকে তুলে রাখুন। এবার এই মসলায় কাটা সবজিগুলো দিয়ে দিন। সবজি কষানো হলে এতে ৬ কাপ পানি দিন। পানি ফুটে উঠলে এই সবজির মধ্যে মাছগুলো দিন।

এবার এতে গোটা কাঁচামরিচ দিয়ে চুলার আঁচ কমিয়ে ঢাকনা দিয়ে ৩০ মিনিট রান্না করুন। ঝোল ঝোল থাকা অবস্থায় নামিয়ে গরম গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন কৈ মাছের স্টু।

বিফ মালাইকারি

উপকরণ
গরুর মাংস- ৩ কেজি
নারিকেলের দুধ- ৪ কাপ
পেঁয়াজ কুচি- ৩ কাপ
রসুন বাটা- ২ চা-চামচ
আদা বাটা- ৪ চা-চামচ
হলুদ গুঁড়া- ১ চা-চামচ
মরিচ গুঁড়া- ১ টেবিল চামচ
জিরা গুঁড়া- ২ চা-চামচ
ধনে গুঁড়া- ২ টেবিল চামচ
এলাচ- ৪টি
দারুচিনি- ৪ টুকরা
তেল- ১ কাপ
লেবুর রস স্বাদ অনুযায়ী
লবণ স্বাদ অনুযায়ী।

প্রণালি

কড়াইতে অর্ধেক তেল ও অর্ধেক পেঁয়াজ দিয়ে ভেজে নিন। পেঁয়াজ ভাজা হলে এতে ২ কাপ নারকেলের দুধ সব মসলা লবণ, মাংস দিয়ে কিছুক্ষণ ভেজে নিতে হবে। মাংস মসলায় কষে এলে এতে প্রয়োজনমতো গরম পানি দিয়ে সিদ্ধ করে নিতে হবে।

মাংস সিদ্ধ হয়ে এলে অন্য একটি কড়াইতে বাকি তেল দিয়ে এতে বাকি পেঁয়াজ লাল করে ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজ লাল হলে এতে ২ কাপ নারকেলের দুধ এবং সিদ্ধ মাংস ঢেলে দিতে হবে।

এবার এতে লেবুর রস, চিনি দিয়ে কষে ৩০ মিনিট রেখে দিন। মাংস ভুনা হলে গরম গরম পোলাও বা ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন মজাদার বিফ মালাইকারি।

গাজরের মালাই সন্দেশ

উপকরণ (হালুয়ার জন্য)
গাজর- মিডিয়াম সাইজের ৮টি, মিহিকুচি
ঘি- আধা কাপ
এলাচ-দারুচিনি- ২/৩টি
ছানা- ২ টেবিল চামচ
গুঁড়াদুধ- আধা কাপ
চিনি- ১/৩ কাপ
মাওয়া- আধা কাপ

মালাই লেয়ারের জন্য
ঘি- ১/৪ কাপ
ছানা- ১.৫ কাপ
সুজি- ২ চা-চামচ
এলাচ গুঁড়া- আধা চা-চামচ
কনডেন্সড মিল্ক- আধা কাপ
গোলাপজল কয়েক ফোঁটা
চিনি স্বাদানুযায়ী ।

প্রণালি

একটি ননস্টিক প্যানে ঘি-তে মিহিকুচি গাজর ভেজে নিন। এতে চিনি এলাচ দারুচিনি দিন, পানি শুকিয়ে এলে ছানা, গুঁড়াদুধ এবং মাওয়া দিয়ে নেড়ে উঠিয়ে নিন, একটু আঠালো ভাব থাকবে।

এবার এই হালুয়া একটি চারকোণা পাত্রে সমানভাবে ঢেলে নিন এবং চেপে চেপে বসিয়ে দিন। পাত্রটি আধা ঘণ্টা ফ্রিজে রাখুন।

অন্য একটি ননস্টিক প্যানে মালাইয়ের সমস্ত উপকরণ দিন। ছানা দিয়ে নাড়তে থাকুন অনবরত যেন দানা বেঁধে না যায়। আঠালোভাব আসলে নামিয়ে নিন এবং গাজরের লেয়ারের উপর সমানভাবে বিছিয়ে দিন।

ঠান্ডা হলে চারকোণা বা বরফি আকারে কেটে পরিবেশন করুন গাজরের মালাই সন্দেশ।

- রেসিপি ও ছবিঃ সায়মা তাসনিম