শুক্রবার,২০ অক্টোবর ২০১৭
হোম / খাবার-দাবার / বৈশাখী রেসিপি - শুভাগতা দেবাশীষ
০৪/০৮/২০১৭

বৈশাখী রেসিপি - শুভাগতা দেবাশীষ

-

পুঁটি মাছের টক

উপকরণ
দেশি পুঁটি- ১৮/২০টি
হলুদের গুঁড়া- আধা চা-চামচ
আস্ত শুকনামরিচ- ২/৩টি
তেঁতুলের ক্বাথ- আধা কাপ
সরিষার তেল- ৩/৪ টেবিল চামচ
কারি পাতা- ২/৩টি
আস্ত সাদা সরিষা পরিমাণমতো
চিনি পরিমাণমতো
লবণ স্বাদমতো

প্রণালি

- হলুদ ও লবণ দিয়ে মাছগুলো মাখাতে হবে। কড়াইতে তেল দিয়ে মাছগুলো সাঁতলিয়ে নিতে হবে।

- সরিষার তেলে আস্ত সরিষা, কারিপাতা, আস্ত শুকনা মরিচ ফোড়ন দিতে হবে। ফোড়ন হয়ে গেলে তেঁতুলের ক্বাথ পানি দিয়ে গুলিয়ে দিতে হবে। তার মধ্যে লবণ ও হলুদ দিয়ে একটু কষিয়ে মাছগুলো দিতে হবে।

- ফুটে উঠলে চিনি দিতে হবে। তারপর নামিয়ে ফেলতে হবে।

পাটপাতার বড়া

উপকরণ
কচি পাটপাতা- ২০/২৫টি
টে¤পুরা ফ্লাওয়ার/ময়দা- ১ কাপ
মরিচের গুঁড়া- আধা চা-চামচ
চিনি পরিমাণমত
আস্ত পোস্তদানা- আধা টেবিল চামচ
পানি পরিমাণমত
সয়াবিন তেল পরিমাণমতো
লবণ স্বাদমতো

প্রণালী

- টেম্পুরা ফ্লাওয়ারের মধ্যে একটু তেল, লবণ, চিনি ও মরিচের গুঁড়া ভালো করে শুকনো হাতে মাখতে হবে।

- পরিমাণমতো পানি দিয়ে ব্যাটার তৈরি করতে হবে। ব্যাটারে পাটপাতা আর পোস্তদানা দিয়ে মাখিয়ে বড়ার আকারে ডুবোতেলে ভাজতে হবে।

- টেম্পুরা ফ্লাওয়ারের পরিবর্তে ময়দা ব্যবহার করতে পারেন।

কাঁচামরিচ ইলিশ দম

উপকরণ
ইলিশ মাছ- ৬/৭ টকুরা
সরিষার তেল- ১ কাপ
হলুদ পরিমাণমতো
লবণ স্বাদমতো
কাঁচামরিচ- ২০/২৫টি
পানি পরিমাণমতো

প্রণালি

- মাছে লবণ ও হলুদ মাখিয়ে রাখুন। টিফিন বক্সে মাছগুলো সাজিয়ে নিন। পাত্রটি একটু বড় নিয়ে একটা একটা করে মাছ বিছিয়ে নিন।

- এবার মাছের উপর সবটুকু তেল এবং কাঁচা মরিচ চিরে দিন। অল্প পরিমাণ পানির ছিটা দিন।

- কড়াইতে পানি দিয়ে ভালোমতো আটকিয়ে টিফিন বক্সটি বসিয়ে দিন। উপরে ভারি কিছু চাপা দিন।

- ১৫ থেকে ২০ মিনিট পর নামিয়ে নিন। গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

চিংড়ি বাদাম

উপকরণ
বড় চিংড়ি/টাইগার প্রণ- ১০/১২টি
দেশি পেঁয়াজ কুচি- ২ কাপ
তেজপাতা- ২টি
দারচিনি- আধা টুকরা
এলাচ- ৩/৪টি
কাঠবাদাম বাটা- ২ টেবিল চামচ
কিশমিশ বাটা- ১ টেবিল চামচ
জায়ফল/জয়িত্রী বাটা- ১ চা-চামচ
টক দই- ১ কাপ
আস্ত কাঁচামরিচ- ৮/১০টি
আদা বাটা- ১ চা-চামচ
রসুন বাটা- ২ চা-চামচ
টমেটো সস- ১ টেবিল চামচ
সয়াবিন তেল পরিমাণমতো
চিনি পরিমাণমতো
লবণ স্বাদমতো

প্রণালি

- চিংড়ি মাছ লবণ দিয়ে হালকা ভেজে নিতে হবে।

- কড়াইতে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি দিতে হবে। পেঁয়াজ হালকা বাদামি রংয়ের হলে তেজপাতা, এলাচ ও দারুচিনি দিতে হবে। সুগন্ধ বের হলে পানি দিতে হবে।

- একে একে রসুন, আদা, বাদাম, কিশমিশ, জায়ফল, জয়িত্রী, হলুদ, মরিচের গুঁড়া দিয়ে ভালো করে কষাতে হবে। দই একটু চিনি লবণ দিয়ে ফেটাতে হবে।

- তেল উপরে উঠলে টমেটো সস, ফেটানো টকদই দিয়ে ভালো করে কষাতে হবে। অল্প গরম পানি দিতে হবে। পানি ফুটে উঠলে মাছগুলো দিতে হবে।

- মাছ সিদ্ধ হয়ে গেলে আস্ত কাঁচা মরিচ দিয়ে নামিয়ে ফেলতে হবে।

নারকেল দিয়ে চিতল মাছ

উপকরণ
চিতল মাছের পেটি- ৭/৮টি
পেঁয়াজ বাটা- ২ টেবিল চামচ
আদা বাটা- ১ চা-চামচ
রসুন বাটা- ১ চা-চামচ
জায়ফল/জয়িত্রী বাটা- আধা চা-চামচ
টমেটো সস/কেচাপ- ১ টেবিল চামচ
গরম মসলা বাটা- আধা চা-চামচ
তেজপাতা- ২টি
কাঠবাদাম বাটা- ২ চা-চামচ
কিশমিশ বাটা- ১ চা-চামচ
নারিকেলের দুধ- ২ কাপ
গমর পানি- দেড় কাপ
সয়াবিন তেল- ১ কাপ
আস্ত এলাচ- ৩/৪টি
দারুচিনি- ১টি
কাঁচামরিচ- ৭/৮টি
হলুদ সামান্য
মরিচ সামান্য
চিনি পরিমাণমতো
লবণ স্বাদমতো

প্রণালি

- মাছ, হলুদ ও লবণ দিয়ে হালকা করে ভেজে নিতে হবে। তেলের মধ্যে আস্ত এলাচ, দারুচিনি, তেজপাতা, ফোড়ন দিতে হবে। সুগন্ধ ছড়ালে পেঁয়াজ বাটা দিয়ে কষাতে হবে।

- তারপর রসুন বাটা এবং আদা বাটা দিয়ে ভালো করে কষাতে হবে। সামান্য হলুদ মরিচের গুঁড়া দিয়ে কষাতে হবে। পানি দিতে হবে। বাদাম, কিশমিশ বাটা ও টমেটো সস দিয়ে কষাতে হবে। পানি দিতে হবে।

- তেল ছাড়লে নারিকেলের দুধ দিতে হবে। ফুটে উঠলে ভাজা মাছগুলো দিতে হবে। কাঁচা মরিচ দিতে হবে।

- নামানোর আগে চিনি এবং জায়ফল/জয়িত্রী আর গরম মশলা বাটা দিয়ে নামিয়ে ফেলতে হবে। ঝোলটা একটু ঘন হবে।

- রেসিপিঃ শুভাগতা দেবাশীষ
- ছবিঃ রাজিব ধর