বৃহস্পতিবার,২৭ এপ্রিল ২০১৭
হোম / জীবনযাপন / যেসব ভুলে হারিয়ে যেতে পারে যৌনজীবনের প্যাশন
০৪/০৪/২০১৭

যেসব ভুলে হারিয়ে যেতে পারে যৌনজীবনের প্যাশন

-

সঙ্গীর সঙ্গে সুস্থ ও স্বাভাবিক যৌনমিলন সম্পর্কের একটি অতি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তবে সামান্য কিছু অনিচ্ছাকৃত ভুলের কারণে সুন্দর স্বাভাবিক নজীবনের মূল প্যাশনই হারিয়ে যেতে পারে। অনেক সময় দেখা যায়, যৌনমিলনের সময় পুরুষ সঙ্গীর সামান্য কিছু অসচেতনতার জন্য দু’জনই শেষ পর্যন্ত শারীরিক এবং মানসিক অসন্তুষ্টির মধ্যে থেকে যান। ফলাফলস্বরূপ, একে অপরের সঙ্গে বোঝাপড়ার অভাব দেখা দেয়, যার রেশ সম্পর্কে যথেষ্ট প্রভাব ফেলে।

- যৌনমিলনের সময় তাড়াহুড়োয় পুরো আনন্দই মাটি করে ফেলেন অনেক পুরুষ। এক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে ব্যাপারটা অনেকাংশেই শারীরিক হলেও এর পেছনে একে অপরের প্রতি ভালোবাসা, আকর্ষণ তথা আবেগঘন বিষয়ের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। তাই তাড়াহুড়ো করবেন না। একে অপরের শরীরের স্পর্শ, আলতো চুম্বন আপনার কাছে তেমন গুরুত্বপূর্ণ না হলেও আপনার সঙ্গীর কাছে তা হতে পারে পরম ভালোবাসার মুহূর্ত।

- অনেক অ্যাডাল্ট মুভি বা বই পড়ে এটা ভাববেন না যে, প্রতিদিন নতুনভাবে একে অপরের সঙ্গে মিলিত হওয়াতেই যত আনন্দ। আপনি যতক্ষণে নতুন পজিশনে নিজেকে মানিয়ে নিতে ব্যস্ত, ততক্ষণে হয়তো আপনার নারী সঙ্গীর প্যাশনটাই শেষ হতে চলেছে। তাই সঙ্গীর অমতে এবং ভালোভাবে কথা না বলে নিয়ে নতুন নতুন কৌশল প্রয়োগ করা থেকে বিরত থাকুন।

- যৌনমিলনের সময় একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ রাখাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। এক্ষেত্রে আপনাদের ভাষা একেবারে শালীন হতে হবে, এমনও কিন্তু নয়। সময়টা একান্তই আপনাদের, তাই প্রাণভরে উপভোগ করাটাই শ্রেয়। যৌনমিলনের সময় একে অপরের সঙ্গে এধরনের কমিনিউকেশন উত্তেজনা বাড়িয়ে দেবে বহুগুণে এবং সময়টা হবে বেশ উপভোগ্য।

- তবে এ সময়টায় কথা বলতেই হবে, তা কিন্তু নয়। মনে রাখবেন, ভাব যেখানে প্রবল, ভাষা সেখানে দুর্বল। অনেক সময় চোখের ভাষা কিংবা চেহারার অভিব্যক্তির মাধ্যমেই মনের কথা বলে দেয়া যায়। তাই আপনার সঙ্গী এ সময়টায় ভার্বাল কমিনিউকেশন না করলেও তাকে এ নিয়ে জোর
করা উচিত নয়। মনে রাখবেন, শারীরিক সম্পর্কের বিষয়গুলোতে আপনার এবং আপনার সঙ্গীর সমান অধিকার আছে। অনেক নারীই এ সময় চুপ থাকতে পছন্দ করেন এবং তাকে যদি কথা বলতে বাধ্য করা হয়, তবে এমন যৌনমিলন তার জন্য মোটেও সুখকর হবে না।

- শারীরিক সম্পর্কের একেবারে স্পর্শকাতর সময়টায় ফোন বেজে উঠলে নির্দ্বিধায় তা রিসিভ করেন এমন পুরুষের সংখ্যা নেহাত কম নয়। রোমান্সের চরম মুহূর্তে আপনার এই অবিবেচকের মতো কাজ-কারবার একজন নারীর জন্য মানসিক এবং শারীরিকভাবে কষ্টকর এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে অপমানজনকও বটে। সঙ্গীর এধরনের আচরণে নারী যৌনমিলনের মূল আনন্দই হারিয়ে ফেলতে পারেন। তাই এ সময়টায় ফোনকল রিসিভ করা বা হুট করে অন্য ঘরে চলে যাওয়ার মতো বাজে অভ্যাস একেবারে বাদ দিতে হবে।

- ক্যান্ডেল লাইট ডিনার, প্রেমের গান কিংবা ঘরভর্তি সাজসজ্জা, রোমান্টিক আবহ তৈরি করলেও অনেকক্ষেত্রে বুমেরাং হিসেবে কাজ করতে পারে। এমন আনুষঙ্গিক ব্যাপারে খেয়াল রাখতে গিয়ে মূল জিনিসটাই ভুলে যান অনেকে। মনে রাখতে হবে, যৌনমিলনের সময় পূর্ণ মনোযোগ সঙ্গীর প্রতিই থাকা উচিত।

- আতিফ হাসান