শুক্রবার,২০ অক্টোবর ২০১৭
হোম / বিনোদন / অভিনয় নিয়েই আছেন সাবেরী আলম
০৩/৩০/২০১৭

অভিনয় নিয়েই আছেন সাবেরী আলম

-

ছোটপর্দার এক জনপ্রিয় মুখ সাবেরী আলম। সমানতালে অভিনয় করে চলেছেন বিজ্ঞাপন ও নাটকে। অভিনয় করছেন সিনেমাতেও। সংসার, সন্তান, টিভি অভিনয়সহ বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে মঞ্চ ছেড়েছেন অনেক আগেই। ১৯৯৪ সালে সর্বশেষ ‘যৈবতি কন্যার মন’ নাটকে মঞ্চে পারফর্ম করেন তিনি।

ছোটবেলা থেকেই সাংস্কৃতিক আবহে বেড়ে ওঠেন সাবেরী আলমের। নাচ শিখেছেন সে সময়েই। এরপর ক্লাস সেভেনে পড়াকালীন ঢাকা থিয়েটারে কাজ শুরু করেন তিনি। তারপর থেকে নিয়মিতই মঞ্চে কাজ করে গেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতা বিষয়ে অনার্স-মাস্টার্স সম্পন্ন করেছেন গুণী এই অভিনেত্রী। ১৯৯৪ সালের পর প্রায় ১৫ বছরের একটা বিরতিও পড়ে অভিনয়ে। ২০০৭ সালে বাংলালিংকের বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে রাজকীয়ভাবে ফেরেন তিনি। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে প্রচার হওয়া এ বিজ্ঞাপনটি ব্যাপক দর্শকপ্রিয়তা পায়। এরপর থেকে আবার নিয়মিত টিভিপর্দায় অভিনয় করে চলেছেন। অসংখ্য নাটকে অভিনয় করে দর্শকপ্রিয়তাও পেয়ে চলেছেন নিয়মিত।

সব সময়ই সংখ্যা নয়, মানের দিকটাকেই বেশি গুরুত্ব দেন এই অভিনেত্রী। এখন তাঁর ব্যস্ততা মূলত নাটক নিয়ে। বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচারিত ধারাবাহিকগুলোর মধ্যে আছে সাজ্জাদ সুমনের ‘চুইংগাম’, খায়রুল পাপনের ‘হোম থিয়েটার’, সাগর জাহানের ‘ল্যাম্প পোস্ট’, অঞ্জন আইচের ‘মেঘের পরে মেঘ’, দিপ্ত টিভিতে আবারও রিপিট হচ্ছে ‘খেলাঘর’। যথারীতি বিজ্ঞাপনেও সরব তিনি। অভিনয়ের পাশাপাশি মাঝে মধ্যে ভয়েস ওভারও দেন বিভিন্ন বিজ্ঞাপনে।

নাটকে অভিনয় প্রসঙ্গে সাবেরী আলম বললেন, ‘নিজের সব কাজই ভালো এটা বলবো না। তবে এ কথা বলতে পারি, আমি সব কাজই ভালো করে করতে চাই। প্রত্যেকটা কাজই যেন ভালো হয় সেটা আমার উদ্দেশ্য থাকে। তবে সব কাজই তো আর ভালো হয় না। যেমন আমি যখন রান্না করতে যাই। আমি চাই প্রত্যেকটা তরকারিই যেন স্বাদের হয়। কিন্তু দেখা যায় একটা একটু বেশি সুস্বাদু হলো তো অন্যটা একটু পড়ে গেল। আর নাটক যেহেতু টিমওয়ার্কÑসব কিছু মিলিয়েই একটা ভালো কিছু দাঁড়ায়। আমি মুনতাসির রিপনের একটি হাসির নাটকে অভিনয় করলাম। এখন ভালো স্ক্রিপ্ট কম। স্ক্রিপ্ট রাইটারের অভাবে অনেক সময় অভিনয় ফোটানো যায় না।

তাঁর অভিনীত আলোচিত বিজ্ঞাপনের তালিকাতে আছে বাংলালিংকের ‘২৬ মার্চ’ বিজ্ঞাপনটি। গত রোজার ঈদে কৃষ্ণেন্দু চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশনায় রেডকাউ বাটার ওয়ালের একটি বিজ্ঞাপনটিও বেশ জনপ্রিয় হয়।

অভিনীত একঘণ্টার অনেকগুলো নাটকের মধ্যে জনপ্রিয় গিয়াস উদ্দিন সেলিম পরিচালিত ‘মুখোশ’ নাটকটি। অভিনয় করেছেন ‘রিনা ব্রাউন’ ও ‘রাজনীতি’ নামক দুটি সিনেমায়। ধারাবাহিক নাটকগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য মাতিয়া বানু শুকুর পরিচালিত ‘অপরজিতা’, বদরল আনাম সৌদ পরিচালিত কয়েকটা ধারাবাহিক নাটকও বেশ জনপ্রিয়।

একজন অভিনেত্রী হিসেবে সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা কী বলে মনে করেনÑএমন প্রশ্নের উত্তরে এই অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি একজন অতিক্ষুদ্র ও সাধারণ মানুষ। আমি এই ধরনের কোনো বিশাল ধারণা থেকে অভিনয় করি না। আমার মনে হয় একজন মানুষ হিসেবে আরেকজন মানুষের জন্য কিছু করতে পারি। প্রতিটা মানুষই যদি কোন না কোন মানুষের জন্য কিছু না কিছু করতে পারে। তাহলেই সেটা এক সময় সামাজিক রূপ পায়। আমি এককভাবে হয় তো বড় কিছু করতে পারব না। করা সম্ভব না আসলে। আমি একজন অভিনেত্রী হিসেবে ভাবি। আমার অনুজরা যেন আমার দ্বারা কোনো ভুল পথে পরিচালিত না হয়। ঠিক দিকে যদি পরিচালিত করতে পারি তাহলে খুব ভালো। আর ঠিক দিকে যদি পরিচালিত করতে না পারি তাহলে অন্তত যেন ভুল দিকে পরিচালিত না করি। আমার মনে হয়, আমি একজন মা এবং একইসঙ্গে একজন অভিনেত্রী। আমি চেষ্টা করি দুটোকে ব্যালেন্স করে চলার। অভিনয়ের জন্যও অনেক হোমওয়ার্ক করতে হয়। একজন ব্যক্তি হিসেবে আমি যদি দায়িত্বশীল হই, তাহলে তার প্রতিফলন সমাজে পড়বে।’

তরুণদের উদ্দেশ্যে করে তিনি বলেন, ‘অভিনয়শিল্পীদের শর্টকাট পথ খোঁজা উচিত না। সবচেয়ে বেশি গুরত্বপূর্ণ ব্যাপারটি হলো আমি যে অভিনয় করছি সেটার প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং যতœবান হতে হবে। শুধু অভিনয়ে নয় জীবনের সব ক্ষেত্রেই তাই।’

সমাজ নিয়ে সচেতন সাবেরী আলম। বললেন, আমি মনে করি যত দিন যাচ্ছে তত সবল হচ্ছে নারীরা। সব পেশাতেই এখন সম্মানজনক অবস্থায় অবস্থান করছে নারীরা। আমি মনে করি পুরষদের কাছ থেকে একজন মেয়ের সম্মান তখনই নিশ্চিত হবে যখন একজন মেয়ে আরেকজন মেয়েকে সম্মান করবে। অনেক সময় আমরা নিজেরাই আমি আমার মধ্য কোনো ঘাটতি আছে। বিষয়টি যদি আমার নিজের মধ্যে থাকে তাহলে কি ভাবে হবে। পুরুষ নারীর ভেদাভেদ ভুলে আমরা যদি সবাই সবাইকে মানুষ ভাবি তাহলেই সব সমস্যার সমাধান হয়ে যায়।

অভিনয় নিয়ে স্বপ্ন ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ভাল কাজ করে যেতে চাই সবসময়। আগের কাজগুলোকে নিজের নতুন প্রতিটি কাজের মাধ্যমে ছাড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা থাকে সব সময়।

- মাসুম আওয়াল